হোম কুয়ারেন্টাইনের সময়কে কাজে লাগান, আয় করুন অনলাইনে।। (Part-02)

হোম কুয়ারেন্টাইনের সময়কে কাজে লাগান, আয় করুন অনলাইনে।। (Part-02)

 

আগের পর্বে আমি আপনাদের জানিয়েছি অনলাইনে আয় করা খুবই সম্ভব এমনকি আপনিও পারবেন খুবই সহজে। এই পর্বে আমি আপনাদের আরেকটু এগিয়ে নিয়ে যাব। মনে রাখবেন, কোন কিছুই একবারে শেখা যায় না, আর লাফ দিয়ে গাছের মগডালে ওঠা যায়না। ধীরে ধীরে উপরের দিকে উঠতে হয়। তাছাড়া গাছে ওঠার আগে দেখে নিতে ভুলবেন না গাছটা কি? সব গাছের ফল কিন্তু এক না ভাই। আয় করুন অনলাইনে।

আমার লেখা অনলাইনে ইনকামের প্রথম পার্ট কারও পড়া না থাকলে এই লিংকে গিয়ে পড়ে আসতে পারেন

অনলাইনে আয় করার অনেকগুলো মাধ্যম থাকলেও আমি আপনাদেরকে কয়েকটি বহুল প্রচলিত মাধ্যমের সাথে পরিচয় করিয়ে দিব যেগুলো করা যাবে খুব সহযেই। কিন্তু মনে রাখবেন একটা গাছ লাগালেই সেই গাছে ফল ধরবে না, সেই গাছের পরিচর্যা করতে হবে, সময় দিতে হবে তারপর গাছে ফুল-ফল আসবে, সেই ফল বড় হবে ব্লা ব্লা ব্লা………

অনলাইনে আয়ের কয়েকটি বহুল প্রচলিত মাধ্যম হলোঃ ফ্রিল্যান্সিং, নিজস্ব ওয়েবসাইট তৈরি, এফিলিয়েশন, ফরেক্স ট্রেডিং (হাই রিস্কি), ইউটিউব চ্যানেল, ফেসবুক পেজ তৈরি ইত্যাদি, ইত্যাদি এবং ইত্যাদি। প্রতিটি কাজের জন্যই দরকার হবে বিশেষ কিছু স্কিল- কিন্তু মজার ব্যাপার হল আমি এই ব্যাপারে নিশ্চিত আপনার যেটুকু স্কিল আছে সেটা দিয়েই আপনি শুরু করতে পারেন। ধীরে ধীরে আপনার এই সামান্য স্কিলই আপনাকে আপনার লক্ষে পৌঁছে দিবে। আয় করুন অনলাইনে।

মজার ব্যাপার হল আজ থেকে ৫ দিন আগেও আমি জানতাম না কিভাবে একটা ওয়েব সাইট বানাতে হয়, কারও কোন রকম সাহায্য ছাড়াই  https://ready2reading.com সাইটটি আমি তৈরি করেছি এবং আপনি এই সাইটে এখন আমার ব্লগটি পড়ছেন। হ্যা, প্রতিটি ব্যাপারই এতই সোজা এবং আমি আপনাকে এটাও শেখাব। আয় করুন অনলাইনে

প্রথমে আসুন ফ্রিল্যান্সিং এর ব্যাপারে। এখানে আপনাকে জ্বলে উঠতে হবে আপন শক্তিতে। আপনাকে খুজে বের করতে হবে আপনার স্কিল কি এবং কোন বিশেষ কাজটি আপনি ভাল পারেন। সেটা হতে পারে প্রোগ্রামিং কিংবা হতে পারে ওয়েব ডিজাইনিং। আপনার এইসব কোন জ্ঞ্যান নাই, আপনি প্রোগ্রামিং এর বালও বুঝেন না, আপনি সিভিল ইঞ্জিনিয়ার, খুঁজে নেন আপনার রিলেটেড কাজ- করেন স্ট্রাকচারাল ডিজাইনের কাজ, তাও পারেন না কিন্তু আপনার বাংলা-ইংরেজিতে ভাল জ্ঞ্যান আছে করেন ট্রান্সলেশনের কাজ। তাও পারেন না? তাতেও সমস্যা নাই ডাটা এন্ট্রি করেন, সার্ভের কাজ করেন। ডাটা কালেক্টশন এর কাজ করেন। এমন অনেক কাজ আছে যেটা করার জন্য শুধু ইন্টারনেট ব্রাউজিং এর নলেজটাই দরকার। আর যে জিনিষটি দরকার সেটা হল ধৈর্য এবং লেগে থাকার শক্তি।

এখন কোথায় গেলে এই কাজগুলো পাবেন একটু গুগল করেন। অনেক সাইট আছে আপনাকে কাজ দেবার জন্য বসে আছে। আপনার কাজ শুধু সাইন আপ মানে রেজিস্টেশন করে বিডিং করা, যত দিন না পাবেন লেগে থাকা। লেগে থাকেন পারবেন।

এর পরে আসেন এফিলিয়েশন মার্কেটিং। এটা একটা বিশাল জগত। অল্প পরিসরে বলা সম্ভব নয়। আজ এই পর্যন্ত থাকল, পরেরদিন এখান থেকে শুরু করব।

পার্ট -০১ পড়ুন এখানে।

ধন্যবাদ সবাইকে।