Best Forex Indicator – ট্রেডারদের যেগুলো জানতেই হবে।

Best Forex Indicator – ট্রেডারদের যেগুলো জানতেই হবে।

আপনি যদি একজন ফরেক্স ট্রেডার হয়ে থাকেন তাহলে আপনাকে ইন্ডিকেটর নিয়ে জানতেই হবে। ইন্ডিকেটরই আপনাকে বলে দেবে আপনি কোথায় বাই দিবেন কিংবা কোথায় সেল দিবেন। তবে একটি কথা মনে রাখবেন কোন ইন্ডিকেটরই আপনাকে ১০০% সঠিক সিগন্যাল দিবেনা, অনেক সময়ই আপনাকে ফলস সিগন্যাল দিবে। ফরেক্স ইন্ডিকেটর ব্যবহারেরও কিছু নিয়ম কানুন রয়েছে, এই নিয়ম কানুনগুলো জেনে আপনার ট্রেডিং স্ট্রাটেজি ঠিক করলে আপনি ফরেক্স থেকে মাসে লাখ টাকা আয় করতে পারবেন। আজকের ব্লগে আমি আপনাদের জানাব  ফরেক্স এ Best Forex Indicator কোনগুলো। সেগুলোর ব্যাবহার কিভাবে করবেন ইত্যাদি নানা বিষয় নিয়ে।

আজকের ব্লগটি পড়ার আগে আপনাকে অবশ্যই কিছু বেসিক জিনিষ জেনে নিতে হবে। যেমন- ফরেক্স কি? ফরেক্স কিভাবে কাজ করে? ইত্যাদি নানা বিষয়। আপনার যদি বিষয়গুলো জানা থাকে তাহলে ত ভালই, আর যদি জানা না থাকে তাহলে নিচের লিংক থেকে পড়ে নিতে পারবেন।

ফরেক্স ইন্ডিকেটর কি?

ফরেক্স ইন্ডিকেটর হচ্ছে এক প্রকারের টুলস যা আপনাকে ভবিষ্যৎ মার্কেট বুঝতে সাহায্য করে এবং আপনাকে ট্রেড করার ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে সহায়ক ভূমিকা রাখে। সোজা বাংলায় ইন্ডিকেটর হল একটি নির্দেশক। যা আপনাকে মার্কেটের ইতিহাস থেকে ডাটা নিয়ে মার্কেটের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে একটি পূর্বাভাস দিবে।

যারা সফল ট্রেডার তারা এই টুলস ব্যবহার করে মার্কেট ভালভাবে পড়তে পারে এবং সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়ে লাভবান হয়। ফরেক্স ইন্ডিকেটর যত ভালভাবে বুঝতে পারবেন, দেখবেন মার্কেট ততই আপনার পক্ষে আসছে এবং আপনি লাভ করতে পারছেন।

মার্কেটে হাজার হাজার ইন্ডিকেটর রয়েছে, সফল ট্রেডারেরা সেখান থেকে কিছু ইন্ডিকেটর নিয়ে নিজস্ব ট্রেডিং স্ট্রাটেজি তৈরি করে নেন। আবার অনেকেই নিজের স্ট্রাটেজি তৈরি করার জন্য ইন্ডিকেটরকে নিজের পছন্দমত সেটআপ করে নেন।

Best Forex Indicator গুলো জেনে নিয়ে ভালভাবে সেগুলোকে এপ্লাই করুন। সফলতা আসবেই।

ইন্ডিকেটর কেন প্রয়োজন

আপনি যদি একজন টেকনিক্যাল এনালিস্ট হয়ে থাকেন তাহলে ইন্ডিকেটর হল আপনার ট্রেডিং এর মৌলিক হাতিয়ার, যা আপনার ট্রেডিং কে আরও সহজ করে দিবে। না বুঝে না এনালাইসিস করে আপনি হয়ত দুই/এক দিন সফল হতে পারবেন কিন্তু দীর্ঘ মেয়াদে সফল হতে হলে আপনাকে অবশ্যই ইন্ডিকেটর ব্যবহার করতে হবে।

আমরা অনেক সময় না জেনে বা না বুঝে অনেকগুলো ইন্ডিকেটর নিয়ে কাজ করি এবং নিজেই কনফিউজড হয়ে যাই। কিন্তু ট্রেডে সফল হবার জন্য আসলে এত এত ইন্ডিকেটর নিয়ে কাজ করার দরকার নেই। খুব ভাল ৫টি ইন্ডিকেটরই আপনাকে সফলতা এনে দিতে পারে। আপনাকে ইন্ডিকেটরগুলোকে ভালভাবে ব্যবহার করতে হবে।

ইন্ডিকেটরের প্রকারভেদ

বিভিন্ন ধরনের ইন্ডিকেটর হয়ে থাকে। নিচে এদের প্রকারভেদ দেয়া হলঃ

  • ট্রেন্ড ইন্ডিকেটর, মার্কেটের ট্রেন্ড নির্দেশ করতে সাহায্য করে।
  • ভোলাটিলিটি ইন্ডিকেটর, মার্কেটের অনিশ্চয়তা প্রকাশ করে।
  • মোমেনটাম ইন্ডিকেটর, মার্কেটের বায়ার বা সেলারদের শক্তি নির্দেশ করে।
  • ভলিউম ইন্ডিকেটর, মার্কেটের ট্রেডের ভলিয়ুম নির্দেশ করে।
  • সাইকেল ইন্ডিকেটর, মার্কেটের প্যাটার্ন এর পুনরাবৃত্তি নির্দেশ করে।
  • বিল উইলিয়ামস ইন্ডিকেটর, মার্কেটের ট্রেন্ড এবং এন্ট্রি পয়েন্ট নির্দেশ করে।

সেরা কয়েকটি ইন্ডিকেটর

খুঁজলে আপনি হাজার হাজার ইন্ডিকেটর পাবেন, কিন্তু আমার দৃষ্টিতে সেরা পাঁচটি ইন্ডিকেটর এর তালিকা নিচে দেয়া হল। এগুলোই Best Forex Indicator আপনি নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারেন।

  • RSI 14
  • Moving Average
  • Moving Average Convergence Divergence
  • Bollinger Band
  • Fibonacci Retracement

উপরের ইন্ডিকেটর গুলোর ব্যবহার আপনাকে সঠিকভাবে জানতে হবে। তাহলেই আপনি আপনার ট্রেড আরও সহজ হবে এবং আপনাকে সফলতা এনে দিতে পারবে। আপনাদের সুবিধার্থে নিচে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করছি।

RSI 14

RSI অর্থ হল রিলেটিভ স্ট্রেন্থ ইন্ডেক্স। এটি মার্কেটে কোন পেয়ার অভার বট (Over Bought)  কিংবা অভার সোল্ড (Over Sold) কিনা তা নির্দেশ করে। এর মান যদি ৩০ কিংবা এর নিচে থাকে তাহলে অভার সোল্ড (Over Sold) বলা হয়, আপনি তখন বাই দিতে পারেন। আবার এর মান যখন ৭০ কিংবা তার চেয়ে বেশি থাকে তখন পেয়ারটি অভার বট (Over Bought)  কলা হয়, আপনি তখন সেল দিতে পারেন।

তারমানে আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে, কখন RSI 14 এর মান ৩০ বা ৭০ হয়। যদি এই RSI 14 এর মান ৩০ বা ৭০ পান তাহলে আপনি বাই বা সেল দিতে পারবেন।

এটি একটি ইন্ডিকেটর যা আপনাকে বাই বা সেল সিগন্যাল দিয়ে থাকে। আপনার এন্ট্রি পয়েন্ট বের করার জন্য এটি বেশ কার্যকর ভূমিকা রাখবে। Best Forex Indicator এর লিস্টে একেই প্রথমে রাখলাম।



Moving Average

মুভিং এভারেজ এমন একটি ইন্ডিকেটর যা আপনাকে সাপোর্ট রেসিস্টেন্স নির্দেশ করবে। জনপ্রিয় কয়েকটি মুভিং এভারেজ হল ৫, ১০, ৫০, ১০০ এবং ২০০। আপনি আপনার মেটাট্রেডার টার্মিনালে এই মুভিং এভারেজগুলো সেট করে নিতে পারেন। Best Forex Indicator হিসেবে আমার দ্বিতীয় পছন্দ Moving Average।

কিভাবে সেট করবেন? মেটাট্রেডার টার্মিনালের Insert মেনুতে গিয়ে Indicators তারপর Trend এ ক্লিক করলে  Moving Average পাবেন। সেখানে ক্লিক করুন। তারপর আপনি আপনার পছন্দমত ৫,১০,৫০,১০০ পিরিয়ড সেট করে দিন। একেক মুভিং এভারেজ এর জন্য এক একটি রঙ পছন্দ করে দিন। তাহলে, কালার দেখেই আপনি চিনতে পারবেন কোনটি কত এম এ (MA)।

MA গুলো আপনাকে সাপোর্ট এবং রেসিস্ট্যান্স বের করতে সহায়তা করবে। আপনি সাপোর্টে বাই দিবেন এবং রেসিস্ট্যান্সে সেল দিবেন।

আপনার যদি সেল এন্ট্রি থাকে সাপোর্টে ক্লোজ করে দিতে পারবেন আবার যদি বাই এন্ট্রি থাকে তাহলে রেসিস্ট্যান্সে ক্লোজ অরে দিতে পারবেন। MA গুলো ব্যবহার করে আপনি টেক প্রফিটও (TP) বসিয়ে রাখতে পারবেন। একইভাবে আপনি স্টপ লস (SL) দিয়ে রাখতে পারেন।

Moving Average আপনার ট্রেডকে কতভাবে সহায়তা করতে পারে তা নিশ্চই বুঝতে পারছেন।

Moving Average Convergence Divergence

এটি মার্কেটের ট্রেন্ড নির্দেশ করে। এন্ট্রি নিতে হলে আসলে প্রথম যে ব্যাপারটি বুঝা দরকার তা হল মার্কেটের ট্রেন্ড বুঝা। মার্কেট আপট্রেন্ডে আছে নাকি ডাউনন্ট্রেন্ডে? এটি বুঝতে হলে আপনাকে Moving Average Convergence Divergence বা সংক্ষেপে MACD বুঝতে হবে।

MACD ইনডিকেটরে দুইটি লাইন থাকে, যার একটি আরেকটিকে ক্রস করলে প্রাইস রিভার্স করে ট্রেন্ড পরিবর্তন করে। এটি আপনাকে বাই এবং সেল সিগন্যাল দিবে। উপর থেকে ক্রস করলে সেল এবং নিচে থেকে ক্রস করলে বাই সিগন্যাল ধরা হয়।

Best Forex Indicator হিসেবে আসলে একেই প্রথমে রাখা উচিত ছিল, কারণ ট্রেন্ড বের করতে এর জুড়ি নেই। আপনি যদি ট্রেণ্ড এর বিপরীতে থাকেন আপনার খবর আছে। মনে রাখবেন ট্রেন্ড ইজ ইউর ফ্রেন্ড।

Bollinger Band

এটিও মুভিং এভারেজ দিয়ে তৈরি একটি ইন্ডিকেটর। এই ব্যান্ডের উপরের ব্যান্ড রেসিসট্যান্স এবং নিচের ব্যান্ড সাপোর্ট নির্দেশ করে। তাহলে প্রাইস উপরের ব্যান্ডে টাচ করলে সেল এবং নিচের ব্যান্ডে টাচ করলে বাই দিবেন।

এটিও মূলত সাপোর্ট আর রেসিসট্যান্স নির্দেশ করে। তারমানে এই নয় যে মার্কেট আজীবন এই ব্যান্ডের মধ্যেই থাকবে। কখনও কখনও মার্কেট এই ব্যান্ড ভেদ করে বের হয়ে যেতে পারে।

Fibonacci Retracement

এই টুলস বা ইন্ডিকেটর ব্যবহার করে আপনি রিট্রেসমেন্ট ক্যাল্কুলেট করতে পারবেন। ট্রেড নিতে এবং ক্লোজ করতে এই ইন্ডিকেটর খুব সহায়ক। মার্কেট কখনই টানা একদিকে যায় না, কিছুদূর যাওয়ার পরে আবার কিছুটা রিট্রেস করে।

এই রিট্রেসমেন্ট ২৩.৬%, ৩৮.২%, ৫০%, ৬১.৮% এবং ১০০% হতে পারে। এই ইন্ডিকেটর দেখে আপনি এন্ট্রি এবং এক্সিট পয়েন্ট বের করে নিতে পারবেন। মনে রাখবেন Fibonacci Retracement ও একটি গ্রাফিক্যাল ইন্ডিকেটর। আপনাকে মেটা ট্রেডারে এটিকে ড্র করে নিতে হবে।

Best Forex Indicator হিসেবে এটা রাখলাম সবার শেষে।

ইন্ডিকেটরের ব্যবহার কিভাবে করবেন

আশা করি আপনি উপরের ইন্ডিকেটরগুলো নিয়ে একটা ধারণা পেয়ে গেছেন। মোট ইন্ডিকেটর হল ৫টি। এখন আপনি নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করে ট্রেড নিতে পারেন।

ধাপ-০১ঃ ট্রেন্ড আইডেন্টিফাই করুন সবার আগে।

প্রথমে MACD দেখে বুঝে নিন মার্কেট আপট্রেন্ড নাকি ডাউনন্ট্রেন্ডে আছে। বুঝার জন্য বড় টাইমফ্রেম ব্যবহার করুন। প্রথমে মান্থলি, তারপর উইকলি এবং শেষে ডেইলি চার্ট দেখুন। এই তিনটি চার্ট দেখে বুঝার চেষ্টা করুন মার্কেটের ট্রেন্ড।

এই ধাপেই আপনাকে বুঝতে হবে আপনি বাই দিবেন নাকি সেল দিবেন। আপট্রেন্ডে থাকলে বাই আবার ডাউনট্রেন্ডে থাকলে সেল দিবেন। এটা ডিসাইড করে ফেলুন।

ধরে নিচ্ছি, আপনি মার্কেট আপট্রেন্ডে আছে পেয়েছেন এবং বাই দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

ধাপ-০২ঃ এন্ট্রি পয়েন্ট বের করুন

এবার আপনার কাজ হল সঠিক এন্ট্রি পয়েন্ট বের করে ফেলা। এজন্য আপনাকে 4H চার্ট বের করতে হবে। যেহেতু বাই দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাই আপনাকে নেয়ারেস্ট সাপোর্ট বের করতে হবে। ডেইলি, উইকলি, মান্থলি এবং ৪ ঘন্টার চার্ট দেখে সব সাপোর্ট গুলো বের করে লিখে ফেলুন। অথবা মেটা ট্রেডারে দাগ দিয়ে এঁকে রাখুন। মার্কেট শুধুমাত্র এই জায়গাতে এলেই আপনি বাই দিবেন। পেন্ডিং বাই দিয়ে রাখতে পারেন।

ধাপ-০৩ঃ SL/TP দিয়ে রাখুন

ট্রেড নেয়া হয়ে গেলে SL/TP দিয়ে রাখতে ভুলবেন না। SL/TP দেয়ার সময়ও আপনি সাপোর্ট এবং রেসিস্ট্যান্স দেখে SL/TP দিন। তাহলে আপনাকে আর আফসোস করতে হবেনা।

অনেকেই ৫টি ইন্ডিকেটরের মধ্যে যখন তিনটি ইন্ডিকেটর একই দিকে এন্ট্রি নিতে বলে সেই দিকটাই ফলো করে। মানে, শুধুমাত্র একটি ইন্ডিকেটর না দেখে তারা কম পক্ষে তিনটি ইন্ডিকেটর যদি বাই দিতে বলে তাহলে তারা বাই দেন। তা নাহলে অপেক্ষা করেন।

মনে রাখবেন, অপেক্ষার ফল মধুর হয়ে থাকে। যারা ফরেক্সে লস করে থাকেন তারা সবাই শুধুমাত্র ৩/৪টি কারনে লস করে থাকেন। আসুন জেনে নেই।


ফরেক্সে লস করার কারণ

যারা ফরেক্স ট্রেডিং এ লস করেন, তাদের মধ্য নিচের বৈশিষ্ঠগুলো দেখা যায়।

মানি ম্যানেজমেন্ট মানেন না

প্রায় শতভাগ ট্রেডার যারা লস করেন তারা কেও মানি ম্যানেজমেন্ট মানেন না। তারা তাদের ইকুইটির সবটুকুই ইনভেস্ট করে থাকেন। ফলে তারা সবাই তাদের সব টাকা হারান।

অভার ট্রেডিং করেন

যারা লস করেন তারা প্রায় সবাই অভার ট্রেডিং করে থাকেন। এই বাই দেন ত আবার এই সেল দেন। তারা বিনা কারনে বাই সেল করতেই থাকেন সারাদিন।

ধৈর্য শক্তি কম

যারা লস করেন তাদের ধৈর্য শক্তি একদম নেই বললেই চলে। কোন দিকে তারা স্থির থাকতে পারেন না। তারা অল্প সময়েই প্রফিট করতে চান।

SL/TP ব্যবহার করেন না

তারা কখনই SL/TP ব্যবহার করতে চান না। একাউন্ট উড়ে যায় যাক, কিন্তু তারা লসে ট্রেড ক্লোজ করতে চান না। লস মেনে নিতে পারেন না। সকল ট্রেডেই তারা লাভ করতে চান।

লোভ করেন বেশি

যারা ফরেক্সে লস করেন তাদের প্রায় সবাই লোভ করেন বেশি, বড় লট মেরে দিয়ে তারা দ্রুত অনেক বেশি প্রফিটের আশা করেন তারা।

আশা করি আপনারা যারা আমার আজকের লেখাটি পড়েছেন তারা উপরের দোষগুলো এড়িয়ে চলবেন। Best Forex Indicator ব্যবহার করে ফরেক্স থেকে ভাল প্রফিট করবেন, এই কামনায় বিদায় নিচ্ছি। ভাল থাকবেন সবাই।


Leave a Reply