বাংলা ব্লগিং এ কম্পিটিশন দিন দিন বেড়েই চলেছে। এই প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে আপনাকে অবশ্যই Bangla keyword research করে কনটেন্ট লিখতে হবে। যদি তা না করে দিনের পর দিন কঠিন পরিশ্রম করে শুধু লিখেই যান তা আপনাকে টাকা বা ডলার কোনটাই এনে দিতে পারবেনা।

একথা গুলো কেন বললাম, এই ব্লগটি পুরোপুরি না পড়লে বুঝতে পারবেন না। যারা পুরানো ব্লগার, অনেক দিন থেকে ব্লগিং করে আসছেন তাদের জন্য নয়, যারা ব্লগিং জগতে নতুন বিশেষ করে বাংলা ব্লগিং এ যারা নতুন এসেছেন তাদেরকে বলছি।

Bangla keyword কি?

গুগল বা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনে মানুষজন যেসব বাংলা শব্দ বা শব্দ সমষ্টি লিখে সার্চ দিয়ে থাকে সেগুলোকেই Bangla keyword বলে। কি ওয়ার্ড প্রধানত নয় প্রকারের হয়ে থাকে।

সর্ট টেইল কি ওয়ার্ডঃ সোজা বাংলায় তিন কিংবা তার চেয়ে কম শব্দের কি ওয়ার্ডকে সর্ট টেইল কি ওয়ার্ড বলা হয়। সর্ট টেইল কি ওয়ার্ড এ অনেক সার্চ ভলিউম থাকে তাই প্রতিযোগিতা হয় অনেক বেশি, তাই নতুনদের জন্য সর্ট টেইল কি ওয়ার্ড নিয়ে না লেখাই ভাল।

লং টেইল কি ওয়ার্ডঃ তিন শব্দের বেশি কি ওয়ার্ডগুলোকে বলা হয় লং টেইল কি ওয়ার্ড। এই ধরনের কি ওয়ার্ড এর সার্চ ভলিউম থাকে কম এবং প্রতিযোগিতাও অনেক কম হয়। নতুনদের জন্য এইসব কি ওয়ার্ড নিয়ে কাজ করা অনেক সহজ।

সর্ট টার্ম ফ্রেস কি ওয়ার্ডঃ এই ধরনের কি ওয়ার্ড অল্প সময়ের জন্য চলে মানে সিজনাল। যেমন কিছুদিন আগে ছিল করোনা ভাইরাস। ঐ সময়ে অনেক সার্চ ভলিউম ছিল এখান আর নাই।

লং টার্ম এভারগ্রীন কি ওয়ার্ডঃ এটা হল সেই ধরনের কি ওয়ার্ড যেগুলো সময়ের সাথে সাথে হারিয়ে যায়না। যেমন- ফিজিক্সের সূত্র কিংবা ম্যাথমেটিক্যাল কোন সূত্র। এগুলো সময়ের সাথে সাথে হারিয়ে যায়না। সার্চ ভলিউম কম হলেও সবসময় কিছু ট্রাফিক থাকবেই।

কাস্টোমার ডিফাইনিং কি ওয়ার্ডঃ এটা হচ্ছে সেই ধরনের কি ওয়ার্ড যা লিখে কোন কাস্টোমার কোন প্রোডাক্ট নিয়ে প্রথমে খোঁজ খবর করে থাকে, প্রোডাক্টটি কেনার জন্য মন ঠিক করেছে।

প্রোডাক্ট ডিফাইনিং কি ওয়ার্ডঃ এগুলো আসলে কোন প্রোডাক্ট এর বর্ণনা মূলক কি ওয়ার্ড। যারা কোন প্রোডাক্ট বাছাই করে ফেলেছে এখন প্রোডাক্ট কিনতে চায় তারা এইসব কি ওয়ার্ড দিয়ে সার্চ দিয়ে থাকে।

জিও টার্গেটিং কি ওয়ার্ডঃ কোন স্পেছিফিক জায়গা কেন্দ্রিক যে কি ওয়ার্ড সেগুলোকে জিও টার্গেটিং কি ওয়ার্ড বলে। যদি কেও সার্চ দেয় “বগুড়ায় কি কি বিখ্যাত” তাহলে এটা একটা জিও টার্গেটিং কি ওয়ার্ড।

এলএসআই কি ওয়ার্ডঃ কোন কি ওয়ার্ডের সমার্থক অন্য কোন কি ওয়ার্ড হল এলএসআই কি ওয়ার্ড। এই কি ওয়ার্ডে বিস্তৃতি অনেক বেশি। এধরনের কি ওয়ার্ড নিয়ে কাজ করলে ভাল সফলতা পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

ইন্টেন্ট টার্গেটিং কি ওয়ার্ডঃ কোন ভিজিটর কোন প্রোডাক্ট নিয়ে সার্চ করতে থাকলে শেষ পর্যায়ে যখন সে ঐ প্রোডাক্টের বেষ্ট প্রাইজ নিয়ে খোঁজ করে তখন বুঝতে হবে সে প্রোডাক্ট কেনার বেপারে শেষ পর্যায়ে চলে এসেছে। এ ধরনের ইন্টেন্ট টার্গেট করে যেসব কি ওয়ার্ড হয় তাকেই ইন্টেন্ট টার্গেটিং কি ওয়ার্ড বলে।

Bangla keyword research কি?

কোন ব্লগ বা কনটেন্ট লেখার আগে কি ওয়ার্ড এর সার্চ ভলিউম, তার ডিফিকাল্টি লেভেল ইত্যাদি নিয়ে এনালাইসিস করাকেই বলে কি ওয়ার্ড রিসার্চ। বাংলা কি ওয়ার্ড নিয়ে রিসার্চ করাকে বলে বাংলা কি ওয়ার্ড রিসার্চ।

 Bangla keyword research কেন করবেন?

কি ওয়ার্ড রিসার্চ কেন গুরুত্বপূর্ণ এটি যদি আপনি না জেনে থাকেন তাহলে শুনুন। যখন কোন ইউজার গুগলে বাংলা কোন কি ওয়ার্ড লিখে সার্চ করে গুগল তার ইনডেক্সিং এলগরিদম ব্যবহার করে তার ব্যবহারকারিকে সর্বোত্তম রেজাল্ট দেখাতে চায়। যাতে ইউজার যা খুঁজছেন তা পান।

এখন বাংলা ভাষায় যেসব কি ওয়ার্ড দিয়ে সার্চ করা হয় আপনাকে অবশ্যই ঐসব কি ওয়ার্ড নিয়েই লিখতে হবে। এসবের বাইরের কোন কি ওয়ার্ড নিয়ে লিখলে আপনি ভিজিটর পাবেন না। আর আপনি যদি আপনার পেইজে কোন ভিজিটর না পান তাহলে সেখান থেকে ইনকাম আসবে কিভাবে, তাই না?

তাই আপনাকে অবশ্যই কি ওয়ার্ড রিসার্চ করে এমন সব কি ওয়ার্ড নিয়েই লিখতে হবে। Bangla keyword research করা তাই বাংলা ব্লগিং এ খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। শুধুমাত্র বাংলা ব্লগিং নয় যেকোন ব্লগিং এর জন্যই keyword research খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

keyword research না করে লিখলে কি হয়?

কি ওয়ার্ড রিসার্চ না করে লিখলে আসলে যেটি হয় তাকে এককথায় বলতে গেলে বলতে হয় আপনি আপনার সাইটে ভিজিটর পাবেন না। কারন আমরা যখন ব্লগিং শুরু করে আমাদের নতুন সাইটকে আসলে কয়জন চিনে? কেও চেনেনা। আমাদের সাইটে ভিজিটর আসার মূল সোর্স হল গুগল সার্চ ইঞ্জিন।

এই সার্চ ইঞ্জিন থেকে ভিজিটর আনতে হলে আপনাকে যেসব বিষয়ে সার্চ হয়ে থাকে সেগুলোই লিখতে হবে। কি ওয়ার্ড রিসার্চ করে যদি না এসইও ফ্রেন্ডলি লেখা যদি আপনি না লিখেন তাহলে আপনাকে গুগল সার্চে পাওয়া যাবেনা। আর গুগল সার্চে না পাওয়া গেলে আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটর আসবে কোথা থেকে?

Bangla keyword research টুল কি?

যে সব টুল ব্যবহার করে আপনি বাংলা কি ওয়ার্ড রিসার্চ করতে পারবেন তাদেরকেই Bangla keyword research টুল বলে। ইংরেজি কি ওয়ার্ড রিসার্চ করা অনেক সহজ। কারন বেশির ভাগ টুলই ইংরেজি ভাষা সাপোর্ট করে। বাংলা ভাষা সাপোর্ট করে এমন টুল কম।

দুই ধরনের কি ওয়ার্ড রিসার্চ টুল আছে। একটা হল ফ্রি আবার আরেকটা হল পেইড টুল। নতুনদের জন্য পেইড টুল ব্যবহার করা বেশ খরচের ব্যাপার তাই তারা ফ্রি টুল ব্যবহার করতে চান।

জেনে অবাক হবেন, ফ্রি টুল ব্যবহার করেই আপনি কি ওয়ার্ড রিসার্চের কাজ সেরে নিতে পারবেন। ফ্রি বাংলা কি ওয়ার্ড রিসার্চ করা যায় এমন কয়েকটি টুল এখানে দেয়া হলঃ

  • Google Keyword Planner
  • Google Search Console
  • Keyword surfer
  • Keyword.io

Bangla keyword research কিভাবে করবেন?

উপরে আমি কিছু ফ্রি টুলের নাম বলেছি এগুলো ব্যবহার করে আপনি বাংলা কি ওয়ার্ড রিসার্চ করতে পারবেন খুব সহজে।

Google Keyword Planner– আমার মতে গুগল কি ওয়ার্ড প্লানার হতে পারে আপনার জন্য সবচেয়ে শক্তিশালি কি ওয়ার্ড রিসার্চ টুল। আপনি এখানে একসাথে কয়েকটি কান্ট্রি সিলেক্ট করে কোন কি ওয়ার্ডের সার্চ ভলিউম কত, তার ডিফিকাল্টি লেভেল কেমন ইত্যাদি দেখতে পারবেন।

এটি গুগলের একটি সার্ভিস, তাই আপনি এখান থেকে যেসব ডেটা পাবেন তা হবে সবচেয়ে অথেনটিক।

একটি সর্ট টেইল কি ওয়ার্ড দিয়ে সার্চ করে আপনি তার সাথে আরও অনেক লংটেইল কি ওয়ার্ড দেখতে পাবেন।

নিচের ছবিতে দেখুন।

google keyword planner

Google Search Console– আপনি অবশ্যই আপনার সাইট এর সাইট ম্যাপ গুগল সার্চ কনসোলে সাবমিট করেছেন। যেসব কি ওয়ার্ড দিয়ে আপনার আর্টিকেলগুলো র‍্যাংক করেছে এখানে তার লিস্ট পাবেন। এই লিস্ট থেকে আপনি আপনার আর্টিকেল আবারও অপ্টিমাইজ করে নিতে পারেন। দেখবেন, আপনার র‍্যাংক এর ভাল উন্নতি হবে।

search console

Keyword surfer- এটা একটি এক্সটেনশন। এই এক্সটেনশন যদি আপনি এনেবল করে নেন তাহলে গুগল সার্চের পেইজে আপনি সার্চ কি ওয়ার্ডের এর পাশাপাশি আর কি কি কি ওয়ার্ড দিয়ে মানুষ সার্চ করে তার লিস্ট পেয়ে যাবেন। এটাও আপনার  Bangla keyword research করতে বেশ কাজে দেবে।

নিচের ছবিতে দেখুন।

keyword surfer

Keyword.io- এটিও একটি ফ্রি টুল যা দিয়ে আপনি Bangla keyword research করতে পারবেন। একটি সর্ট টেইল কি ওয়ার্ড দিয়ে কান্ট্রি সিলেক্ট করে দিলে আপনাকে শত শতলং টেইল কি ওয়ার্ড দেখাবে। সেখান থেকে কি ওয়ার্ড নিয়ে আপনি গুগল সার্চ কন্সোলে গিয়ে কি ওয়ার্ডের সার্চ ভলিউম আর ডিফিকাল্টি লেভেল দেখে সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন।

ছবিতে দেখুন

keyword.io

Bangla keyword research করার উপকারিতা

কি ওয়ার্ড রিসার্চ করে না লিখলে আপনার লেখা এক কথায় বৃথা। কারন আপনি কোন ভিজিটর পাবেন না। আর যদি ভিজিটর না পান তাহলে ইনকাম করবেন কিভাবে?

আর যদি Bangla keyword research করে লিখেন তাহলে খুব দ্রুতই আপনার লেখা র‍্যাংক করবে এবং আপনি দ্রুত ভিজিটর পেয়ে যাবেন। আপনার ব্লগ থেকে ইনকাম আশা শুরু করবে।

আশা করি আমার এই লেখাটি যারা নতুন বাংলা ব্লগ লেখা শুরু করেছেন তাদের খুবই কাজে লাগবে। যারা ইংরেজিতে দক্ষ নন তারা বাংলা ব্লগ লিখে ব্লগিং এ দক্ষতা অর্জন করতে পারেন।

তারপর ইংরেজি ব্লগ লেখা শুরু করলে দ্রুত সফলতা পেয়ে যাবেন। সবাইকে ধন্যবাদ।

Previous articlegoogle থেকে টাকা ইনকাম করার উপায়?
Next articleওয়েবসাইট খোলার নিয়ম কি?
Mamun
যে ব্যর্থ সে অজুহাত দেখায়, যে সফল সে গল্প শোনায়। আমি অজুহাত নয় গল্প শোনাতে ভালবাসি। আসুন কিছু গল্প শুনি, নিজের গল্প অন্যকে শুনাই।