সেরা দশটি স্মার্টফোন

আপনি কি নতুন স্মার্ট ফোন কেনার কথা ভাবছেন? কিন্তু কিছুতেই মাথায় আসছে না কোন ব্র্যান্ডের মোবাইলটি আপনার জন্য সবচেয়ে ভালো হবে? তবে চিন্তার আর কোন কারণ নেই। আপনার চাহিদা অনুযায়ী কোন স্মার্টফোনটি যথোপযুক্ত হবে সেই দিক নির্দেশনা আমরা আজকের আর্টিকেল থেকে জানব। আজকের নিবন্ধটি আমরা সাজিয়েছি বাংলাদেশের সেরা 10 টি স্মার্টফোন এর রিভিউ নিয়ে। যেগুলো ২০২৪ সালে সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং আপডেটেড স্মার্ট ফোন বলে পরিচিত। স্মার্টফোনগুলি উচ্চমানের ফিচার এবং স্পেসিফিকেশন এর জন্য গ্রাহকদের কাছে প্রথম পছন্দের তালিকায় রয়েছে। যাদের দুর্দান্ত পারফরমেন্স এবং সাবলীল ইউজার এক্সপেরিয়েন্স আপনাকে মুগ্ধ করতে বাধ্য। স্মার্ট ফোন গুলির ফিচার অনুযায়ী আপনি আপনার চাহিদা সমেত খুব সহজেই বেছে নিতে পারবেন আপনার জন্য পারফেক্ট মোবাইল ফোন কোনটি। 

আজকের লেখায় যা থাকছে

তবে আর দেরি কেন? চলুন এক নজরে দেখে নিই মার্কেট কাঁপানো বাংলাদেশের সেরা দশটি স্মার্টফোন কি কি।

1. Samsung Galaxy M35

আমাদের আজকের তালিকার প্রথমেই রয়েছে Samsung Galaxy M35। এই ফোনটি আধুনিক প্রযুক্তি এবং উচ্চমানের ফিচার সমন্বিত একটি সেরা স্মার্টফোন। উন্নত ক্যামেরা, শক্তিশালী ব্যাটারি, এবং চমৎকার ডিসপ্লে ফোনটিকে ব্যবহারকারীদের জন্য একটি আদর্শ পছন্দ করে তোলে। যারা একটি শক্তিশালী এবং নির্ভরযোগ্য স্মার্টফোন খুঁজছেন, তাদের জন্য Samsung Galaxy M35 একটি চমৎকার বিকল্প হতে পারে।

এন্ড্রয়েড মোবাইল নিয়ে ২৫টি মজার তথ্য

মূল বৈশিষ্ট্য ও স্পেসিফিকেশন:

ডিসপ্লে:

  • সাইজ: 6.6 ইঞ্চি
  • রেজোলিউশন: 1080×2340 পিক্সেল
  • প্রযুক্তি: Super AMOLED, যা উন্নত কালার প্রজনন এবং চমৎকার ব্রাইটনেস প্রদান করে।

ক্যামেরা:

  • প্রধান ক্যামেরা: 50MP
  • অতিরিক্ত ক্যামেরা: 8MP আলট্রা-ওয়াইড, 5MP ম্যাক্রো
  • সেলফি ক্যামেরা: 16MP
  • ভিডিও রেকর্ডিং: 2160p@30fps

প্রসেসর ও র‍্যাম:

  • চিপসেট: Exynos 1380
  • CPU: অক্টা-কোর (2×2.4 GHz Cortex-A78 & 6×2.0 GHz Cortex-A55)
  • GPU: Mali-G68
  • র‍্যাম: 8GB

স্টোরেজ:

  • ইন্টারনাল মেমোরি: 128GB/256GB
  • এক্সপান্ডেবল: microSDXC স্লট (শেয়ারড সিম স্লট)

ব্যাটারি:

  • ধারণক্ষমতা: 6000mAh
  • চার্জিং: 25W দ্রুত চার্জিং

অপারেটিং সিস্টেম:

  • OS: Android 13, One UI 5.1

সংযোগ:

  • 5G: হ্যাঁ
  • Wi-Fi: Wi-Fi 802.11 a/b/g/n/ac/6, ডুয়াল-ব্যান্ড, Wi-Fi ডাইরেক্ট
  • Bluetooth: 5.3, A2DP, LE
  • USB: Type-C 2.0, USB On-The-Go

অন্যান্য বৈশিষ্ট্য:

  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর: সাইড-মাউন্টেড
  • অন্যান্য সেন্সর: এক্সেলেরোমিটার, জাইরো, প্রক্সিমিটি, কম্পাস
  • ডিজাইন ও গঠন: গ্লাস ফ্রন্ট, প্লাস্টিক ব্যাক এবং ফ্রেম

ডিজাইন ও বিল্ড কোয়ালিটি:

Samsung Galaxy M35 এর ডিজাইন এবং বিল্ড কোয়ালিটি অত্যন্ত মজবুত। ফোনটির ফ্রন্ট প্যানেলে রয়েছে গরিলা গ্লাস, যা ফোনটিকে স্ক্র্যাচ এবং ড্যামেজ থেকে রক্ষা করে। পিছনের প্লাস্টিক প্যানেলটি ফোনটিকে লাইটওয়েট রাখে এবং ফিঙ্গারপ্রিন্ট মাক্স দেয় না।

কর্মক্ষমতা:

Exynos 1380 চিপসেট এবং 8GB র‍্যামের কম্বিনেশন ফোনটিকে দুর্দান্ত পারফরমেন্স প্রদান করে। মাল্টিটাস্কিং এবং হাই-এন্ড গেমিং এর ক্ষেত্রে Galaxy M35 কোন সমস্যা ছাড়াই পারফর্ম করে।

আমার মোবাইলে কত এমবি আছে কিভাবে জানতে পারব?

ক্যামেরা কোয়ালিটি:

50MP প্রধান ক্যামেরা ফোনটিকে অসাধারণ ফটোগ্রাফি এবং ভিডিওগ্রাফি করতে সক্ষম করে। 8MP আলট্রা-ওয়াইড এবং 5MP ম্যাক্রো লেন্স ছবির বৈচিত্র্য যোগ করে। সেলফি ক্যামেরাও ভালো মানের ফটো এবং ভিডিও শুট করতে পারে।

ব্যাটারি লাইফ:

6000mAh ব্যাটারি একদিনের বেশি সময় ধরে ফোনটিকে চালাতে সক্ষম। 25W দ্রুত চার্জিং প্রযুক্তি দ্রুত চার্জ করার সুবিধা প্রদান করে, যা বিশেষভাবে যাদের ব্যস্ত জীবনযাত্রা রয়েছে তাদের জন্য সুবিধাজনক।

মূল্য:

Samsung Galaxy M35 এর মূল্য বাংলাদেশে প্রায় BDT 70,000, যা এর উচ্চমানের ফিচার এবং স্পেসিফিকেশনের জন্য সঙ্গতিপূর্ণ।

2. Oppo Reno12 Pro

Oppo Reno12 Pro ফোনটি একটি প্রিমিয়াম স্মার্টফোন হিসেবে চিহ্নিত করা যায়। উন্নত ক্যামেরা, শক্তিশালী ব্যাটারি, এবং চমৎকার ডিসপ্লে ফোনটিকে ব্যবহারকারীদের জন্য একটি আদর্শ পছন্দ করে তোলে। যারা একটি প্রিমিয়াম এবং নির্ভরযোগ্য স্মার্টফোন খুঁজছেন, তাদের জন্য Oppo Reno12 Pro একটি চমৎকার বিকল্প হতে পারে।

মূল বৈশিষ্ট্য ও স্পেসিফিকেশন:

ডিসপ্লে:

  • সাইজ: 6.7 ইঞ্চি
  • রেজোলিউশন: 1080×2412 পিক্সেল
  • প্রযুক্তি: AMOLED, 120Hz রিফ্রেশ রেট, HDR10+ সাপোর্ট

ক্যামেরা:

  • প্রধান ক্যামেরা: 50MP, f/1.8 অ্যাপারচার
  • অতিরিক্ত ক্যামেরা: 8MP আলট্রা-ওয়াইড, 2MP ম্যাক্রো
  • সেলফি ক্যামেরা: 32MP
  • ভিডিও রেকর্ডিং: 4K@30fps, 1080p@30/60fps

প্রসেসর ও র‍্যাম:

  • চিপসেট: MediaTek Dimensity 7300
  • CPU: অক্টা-কোর (2×2.6 GHz Cortex-A78 & 6×2.0 GHz Cortex-A55)
  • GPU: Mali-G68 MC4
  • র‍্যাম: 12GB

স্টোরেজ:

  • ইন্টারনাল মেমোরি: 256GB
  • এক্সপান্ডেবল: নো মাইক্রোএসডি সাপোর্ট

ব্যাটারি:

  • ধারণক্ষমতা: 5000mAh
  • চার্জিং: 80W সুপার ফ্ল্যাশ চার্জিং

অপারেটিং সিস্টেম:

  • OS: Android 13, ColorOS 13.1

সংযোগ:

  • 5G: হ্যাঁ
  • Wi-Fi: Wi-Fi 802.11 a/b/g/n/ac/6, ডুয়াল-ব্যান্ড
  • Bluetooth: 5.3, A2DP, LE
  • USB: Type-C 2.0, USB On-The-Go

অন্যান্য বৈশিষ্ট্য:

  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর: আন্ডার-ডিসপ্লে, অপটিক্যাল
  • অন্যান্য সেন্সর: এক্সেলেরোমিটার, জাইরো, প্রক্সিমিটি, কম্পাস
  • ডিজাইন ও গঠন: গ্লাস ফ্রন্ট ও ব্যাক (গরিলা গ্লাস 5), অ্যালুমিনিয়াম ফ্রেম

ডিজাইন ও বিল্ড কোয়ালিটি:

Oppo Reno12 Pro এর ডিজাইন অত্যন্ত আকর্ষণীয় এবং প্রিমিয়াম লুক প্রদান করে। ফোনটির সামনের এবং পিছনের প্যানেলে গরিলা গ্লাস 5 ব্যবহার করা হয়েছে, যা ফোনটিকে মজবুত এবং স্ক্র্যাচ-প্রতিরোধী করে।

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম বিকাশ রিচার্জ ৫০০ টাকা প্রতিদিন।

কর্মক্ষমতা:

MediaTek Dimensity 7300 চিপসেট এবং 12GB র‍্যামের কম্বিনেশন ফোনটিকে দ্রুত এবং মসৃণ পারফরম্যান্স প্রদান করে। মাল্টিটাস্কিং, হাই-এন্ড গেমিং, এবং ভারী অ্যাপ্লিকেশন চালানোর ক্ষেত্রে Reno12 Pro কোন ধরনের ল্যাগ অনুভব করেনা।

ক্যামেরা কোয়ালিটি:

50MP প্রধান ক্যামেরা অসাধারণ ফটোগ্রাফি এবং ভিডিওগ্রাফি করতে সক্ষম। 8MP আলট্রা-ওয়াইড লেন্স এবং 2MP ম্যাক্রো লেন্স ছবির বৈচিত্র্য এবং ডিটেইলস ধরে রাখতে সাহায্য করে। 32MP সেলফি ক্যামেরা উচ্চমানের সেলফি এবং ভিডিও কলিং অভিজ্ঞতা প্রদান করে।

ব্যাটারি লাইফ:

5000mAh ব্যাটারি দীর্ঘস্থায়ী পাওয়ার সাপ্লাই প্রদান করে। 80W সুপার ফ্ল্যাশ চার্জিং প্রযুক্তি দ্রুত চার্জ করার সুবিধা প্রদান করে, যা ব্যবহারকারীদের জন্য অত্যন্ত সুবিধাজনক।

মূল্য:

Oppo Reno12 Pro এর মূল্য বাংলাদেশে প্রায় BDT 75,000, যা এর উচ্চমানের ফিচার এবং স্পেসিফিকেশনের জন্য সঙ্গতিপূর্ণ।

3. Symphony Helio 50

Symphony Helio 50 ফোনটির ডিজাইন অত্যন্ত আকর্ষণীয় এবং আধুনিক। ফোনটির সামনে এবং পিছনে শক্তিশালী প্লাস্টিক উপকরণ ব্যবহার করা হয়েছে যা দৈনন্দিন ব্যবহারের ক্ষেত্রে মজবুত সুরক্ষা প্রদান করে। ফোনটির স্লিম ডিজাইন এবং হালকা ওজন এটিকে বহনযোগ্য এবং ব্যবহারকারী-বান্ধব করে তোলে।

ডিসপ্লে:

  • সাইজ: 6.72 ইঞ্চি
  • রেজোলিউশন: 1080×2400 পিক্সেল
  • প্রযুক্তি: IPS LCD, যা ব্যবহারকারীদের জন্য প্রাণবন্ত এবং স্পষ্ট দৃশ্যমানতা প্রদান করে।

IPS LCD ডিসপ্লে প্রযুক্তির কারণে, Symphony Helio 50 ফোনটি উন্নত রঙের পুনরুৎপাদন এবং প্রশস্ত দেখার কোণ প্রদান করে। এই বড় এবং উজ্জ্বল ডিসপ্লে ব্যবহারকারীদের ভিডিও দেখা, গেম খেলা এবং সাধারণ ব্রাউজিংয়ের অভিজ্ঞতাকে উন্নত করে।

মোবাইল ফোন কেন গরম হয় ? এর প্রতিকার কি?

ক্যামেরা:

  • প্রধান ক্যামেরা: 108MP, f/1.8 অ্যাপারচার
  • অতিরিক্ত ক্যামেরা: 8MP আলট্রা-ওয়াইড, 2MP ডেপথ সেন্সর
  • সেলফি ক্যামেরা: 16MP, f/2.0 অ্যাপারচার
  • ভিডিও রেকর্ডিং: 1080p@30fps

Symphony Helio 50 ফোনটির ক্যামেরা সিস্টেম উন্নত প্রযুক্তির সাহায্যে উচ্চমানের ফটোগ্রাফি এবং ভিডিওগ্রাফি করতে সক্ষম। 108MP প্রধান ক্যামেরা দিয়ে তোলা ছবি গুলোতে অসাধারণ ডিটেইলস এবং স্পষ্টতা দেখা যায়। 8MP আলট্রা-ওয়াইড ক্যামেরা ব্যবহারকারীদের বিস্তৃত দৃশ্য ধারণ করতে সাহায্য করে এবং 2MP ডেপথ সেন্সর পোর্ট্রেট ফটোগ্রাফিতে ন্যাচারাল ব্লার প্রভাব যোগ করে।

প্রসেসর ও র‍্যাম:

  • চিপসেট: MediaTek Helio G88
  • CPU: অক্টা-কোর (2×2.0 GHz Cortex-A75 & 6×1.8 GHz Cortex-A55)
  • GPU: Mali-G52 MC2
  • র‍্যাম: 6GB

MediaTek Helio G88 চিপসেট এবং 6GB র‍্যাম-এর কম্বিনেশন Symphony Helio 50 ফোনটিকে দ্রুত এবং মসৃণ পারফরম্যান্স প্রদান করে। এই চিপসেটটি মাল্টিটাস্কিং এবং হাই-এন্ড গেমিংয়ের জন্য উপযুক্ত, যা ব্যবহারকারীদের উচ্চমানের অভিজ্ঞতা প্রদান করে।

স্টোরেজ:

  • ইন্টারনাল মেমোরি: 128GB
  • এক্সপান্ডেবল: microSDXC স্লট

Symphony Helio 50 ফোনটি 128GB ইন্টারনাল স্টোরেজ প্রদান করে, যা ব্যবহারকারীদের প্রচুর পরিমাণে ছবি, ভিডিও, এবং অ্যাপ্লিকেশন সংরক্ষণ করতে সক্ষম করে। এছাড়াও, microSDXC স্লটের সাহায্যে স্টোরেজ আরও বৃদ্ধি করা যায়।

ব্যাটারি:

  • ধারণক্ষমতা: 5000mAh
  • চার্জিং: দ্রুত চার্জিং সুবিধা

5000mAh ব্যাটারি Symphony Helio 50 ফোনটিকে দীর্ঘ সময় ধরে চালিয়ে রাখতে সক্ষম করে। দ্রুত চার্জিং প্রযুক্তির সাহায্যে ব্যবহারকারীরা দ্রুত চার্জ করতে পারে, যা বিশেষ করে ব্যস্ত জীবনের জন্য উপযুক্ত।

অপারেটিং সিস্টেম:

  • OS: Android 12

Symphony Helio 50 ফোনটি Android 12 অপারেটিং সিস্টেমে চলমান, যা ব্যবহারকারীদের জন্য সহজ এবং ব্যবহারকারীবান্ধব ইন্টারফেস প্রদান করে। এই OS-এর সাহায্যে ব্যবহারকারীরা নতুন এবং উন্নত ফিচারগুলির অভিজ্ঞতা নিতে পারেন।

সংযোগ:

  • 4G: হ্যাঁ
  • Wi-Fi: Wi-Fi 802.11 a/b/g/n/ac, ডুয়াল-ব্যান্ড
  • Bluetooth: 5.0, A2DP, LE
  • USB: Type-C 2.0

Symphony Helio 50 ফোনটিতে উন্নত সংযোগ সুবিধা রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে 4G, Wi-Fi, Bluetooth, এবং USB Type-C। এই সংযোগ সুবিধাগুলি ব্যবহারকারীদের দ্রুত ইন্টারনেট ব্রাউজিং এবং ডাটা ট্রান্সফার সুবিধা প্রদান করে।

অন্যান্য বৈশিষ্ট্য:

  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর: সাইড-মাউন্টেড
  • অন্যান্য সেন্সর: এক্সেলেরোমিটার, জাইরো, প্রক্সিমিটি, কম্পাস

ফোনটির সাইড-মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর দ্রুত এবং নিরাপদ আনলকিং সুবিধা প্রদান করে। এছাড়াও, ফোনটিতে রয়েছে বিভিন্ন সেন্সর, যা ব্যবহারকারীদের অভিজ্ঞতাকে আরও উন্নত করে।

মূল্য:

Symphony Helio 50 এর মূল্য বাংলাদেশে প্রায় BDT 14,699, যা এর উচ্চমানের ফিচার এবং স্পেসিফিকেশনের জন্য সঙ্গতিপূর্ণ।

4. Xiaomi Redmi Note 13 4G

Xiaomi Redmi Note 13 4G-এর ডিজাইন অত্যন্ত আকর্ষণীয় এবং প্রিমিয়াম লুক প্রদান করে। ফোনটির সামনে এবং পিছনে ব্যবহার করা হয়েছে গরিলা গ্লাস, যা ফোনটিকে স্ক্র্যাচ এবং ড্যামেজ থেকে সুরক্ষিত রাখে। ফোনটির বডি মেটাল ফ্রেম দিয়ে তৈরি, যা এটিকে আরও মজবুত এবং টেকসই করে তোলে। এর স্লিম ডিজাইন এবং হালকা ওজন এটিকে ব্যবহার এবং বহন করার জন্য অত্যন্ত সুবিধাজনক।

ডিসপ্লে

Xiaomi Redmi Note 13 4G-এ রয়েছে একটি 6.5 ইঞ্চি IPS LCD ডিসপ্লে, যার রেজোলিউশন 1080×2400 পিক্সেল। এই ডিসপ্লে-তে রয়েছে 90Hz রিফ্রেশ রেট, যা স্ক্রলিং এবং অ্যানিমেশনকে আরও মসৃণ এবং দ্রুত করে তোলে। ডিসপ্লেটি HDR10 সাপোর্ট করে, যা ভিডিও এবং গেমিংয়ের অভিজ্ঞতাকে আরও উন্নত করে।

ক্যামেরা

Xiaomi Redmi Note 13 4G-এ রয়েছে তিনটি ক্যামেরার সেটআপ। প্রধান ক্যামেরাটি 50MP, যা f/1.8 অ্যাপারচারে তোলা ছবি গুলোকে অসাধারণ স্পষ্টতা এবং ডিটেইলস প্রদান করে। দ্বিতীয় ক্যামেরাটি 8MP আলট্রা-ওয়াইড লেন্স, যা বিস্তৃত দৃশ্য ধারণ করতে সক্ষম। তৃতীয় ক্যামেরাটি 2MP ম্যাক্রো লেন্স, যা খুব কাছ থেকে তোলা ছবি গুলোকে স্পষ্ট এবং ডিটেইলস প্রদান করে। সেলফি ক্যামেরা 16MP, যা উচ্চমানের সেলফি এবং ভিডিও কলিংয়ের জন্য আদর্শ।

প্রসেসর ও র‍্যাম

Xiaomi Redmi Note 13 4G-এ ব্যবহৃত হয়েছে Qualcomm Snapdragon 680 চিপসেট। এই চিপসেটটি একটি অক্টা-কোর CPU নিয়ে গঠিত, যা 4×2.4 GHz Kryo 265 Gold এবং 4×1.9 GHz Kryo 265 Silver দিয়ে গঠিত। গ্রাফিক্সের জন্য রয়েছে Adreno 610 GPU। ফোনটির পারফরম্যান্স উন্নত করতে এতে ব্যবহৃত হয়েছে 6GB অথবা 8GB র‍্যাম, যা মাল্টিটাস্কিং এবং হাই-এন্ড গেমিংয়ের জন্য উপযুক্ত।

স্টোরেজ

Xiaomi Redmi Note 13 4G-এ রয়েছে দুটি স্টোরেজ অপশন: 128GB এবং 256GB। এই স্টোরেজ স্পেসগুলি ব্যবহারকারীদের প্রচুর পরিমাণে ছবি, ভিডিও, এবং অ্যাপ্লিকেশন সংরক্ষণ করতে সক্ষম করে। এছাড়াও, ফোনটিতে রয়েছে microSDXC স্লট, যা স্টোরেজ স্পেস আরও বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

ব্যাটারি

Xiaomi Redmi Note 13 4G-এ রয়েছে একটি 5000mAh ব্যাটারি, যা দীর্ঘস্থায়ী পাওয়ার সাপ্লাই প্রদান করে। এই ব্যাটারি দিয়ে ফোনটি একটি চার্জে সম্পূর্ণ দিন চলতে সক্ষম। এছাড়াও, ফোনটিতে রয়েছে 33W দ্রুত চার্জিং সুবিধা, যা দ্রুত ব্যাটারি চার্জ করতে সক্ষম।

অপারেটিং সিস্টেম

Xiaomi Redmi Note 13 4G ফোনটি Android 12 অপারেটিং সিস্টেমে চলমান, যার উপরে রয়েছে MIUI 13 ইউজার ইন্টারফেস। MIUI 13 একটি ব্যবহারকারী-বান্ধব ইন্টারফেস প্রদান করে এবং এতে রয়েছে বিভিন্ন কাস্টমাইজেশন অপশন, যা ব্যবহারকারীদের আরও সহজ এবং সুবিধাজনক অভিজ্ঞতা প্রদান করে।

সংযোগ

Xiaomi Redmi Note 13 4G-এ রয়েছে উন্নত সংযোগ সুবিধা। এতে রয়েছে 4G, Wi-Fi 802.11 a/b/g/n/ac, Bluetooth 5.1, এবং USB Type-C 2.0 পোর্ট। এই সংযোগ সুবিধাগুলি ব্যবহারকারীদের দ্রুত ইন্টারনেট ব্রাউজিং এবং ডাটা ট্রান্সফার সুবিধা প্রদান করে।

অন্যান্য বৈশিষ্ট্য

ফোনটির সাইড-মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর দ্রুত এবং নিরাপদ আনলকিং সুবিধা প্রদান করে। এছাড়াও, ফোনটিতে রয়েছে বিভিন্ন সেন্সর, যেমন এক্সেলেরোমিটার, জাইরো, প্রক্সিমিটি, এবং কম্পাস, যা ব্যবহারকারীদের অভিজ্ঞতাকে আরও উন্নত করে।

মূল্য

Xiaomi Redmi Note 13 4G এর মূল্য বাংলাদেশে প্রায় BDT 23,000 থেকে BDT 27,000, যা এর উচ্চমানের ফিচার এবং স্পেসিফিকেশনের জন্য সঙ্গতিপূর্ণ।

5. Samsung Galaxy A55

Samsung Galaxy A55 ফোনটি আকর্ষণীয় এবং আধুনিক ডিজাইন নিয়ে এসেছে, যা ব্যবহারকারীদের প্রথম দর্শনেই মুগ্ধ করে। এর সামনের প্যানেলে গরিলা গ্লাস এবং পিছনের প্যানেলে প্লাস্টিক ব্যবহার করা হয়েছে, যা এটিকে মজবুত এবং টেকসই করে তোলে। ফোনটির স্লিম এবং হালকা ওজনের ডিজাইন এটি ব্যবহার এবং বহন করতে সুবিধাজনক করে তোলে।

ডিসপ্লে

Samsung Galaxy A55-এ রয়েছে 6.5 ইঞ্চির সুপার AMOLED ডিসপ্লে, যার রেজোলিউশন 1080×2400 পিক্সেল। এই ডিসপ্লে ব্যবহারকারীদের জন্য প্রাণবন্ত এবং স্পষ্ট দৃশ্যমানতা প্রদান করে। 90Hz রিফ্রেশ রেট ডিসপ্লে স্ক্রলিং এবং অ্যানিমেশনকে আরও মসৃণ এবং দ্রুত করে তোলে। HDR10+ সাপোর্ট ডিসপ্লেটি ভিডিও এবং গেমিংয়ের অভিজ্ঞতাকে আরও উন্নত করে।

ক্যামেরা

Samsung Galaxy A55-এ রয়েছে চতুর্মুখী ক্যামেরার সেটআপ। প্রধান ক্যামেরাটি 64MP, যা f/1.8 অ্যাপারচারে তোলা ছবি গুলোকে অসাধারণ স্পষ্টতা এবং ডিটেইলস প্রদান করে। দ্বিতীয় ক্যামেরাটি 12MP আলট্রা-ওয়াইড লেন্স, যা বিস্তৃত দৃশ্য ধারণ করতে সক্ষম। তৃতীয় ক্যামেরাটি 5MP ম্যাক্রো লেন্স, যা খুব কাছ থেকে তোলা ছবি গুলোকে স্পষ্ট এবং ডিটেইলস প্রদান করে। চতুর্থ ক্যামেরাটি 5MP ডেপথ সেন্সর, যা পোর্ট্রেট ফটোগ্রাফিতে বোকেহ এফেক্ট প্রদান করে। সেলফি ক্যামেরা 32MP, যা উচ্চমানের সেলফি এবং ভিডিও কলিংয়ের জন্য আদর্শ।

প্রসেসর ও র‍্যাম

Samsung Galaxy A55-এ ব্যবহৃত হয়েছে Exynos 1280 চিপসেট। এই চিপসেটটি একটি অক্টা-কোর CPU নিয়ে গঠিত, যা 2×2.2 GHz Cortex-A78 এবং 6×2.0 GHz Cortex-A55 দিয়ে গঠিত। গ্রাফিক্সের জন্য রয়েছে Mali-G68 GPU। ফোনটির পারফরম্যান্স উন্নত করতে এতে ব্যবহৃত হয়েছে 6GB অথবা 8GB র‍্যাম, যা মাল্টিটাস্কিং এবং হাই-এন্ড গেমিংয়ের জন্য উপযুক্ত।

স্টোরেজ

Samsung Galaxy A55-এ রয়েছে দুটি স্টোরেজ অপশন: 128GB এবং 256GB। এই স্টোরেজ স্পেসগুলি ব্যবহারকারীদের প্রচুর পরিমাণে ছবি, ভিডিও, এবং অ্যাপ্লিকেশন সংরক্ষণ করতে সক্ষম করে। এছাড়াও, ফোনটিতে রয়েছে microSDXC স্লট, যা স্টোরেজ স্পেস আরও বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

ব্যাটারি

Samsung Galaxy A55-এ রয়েছে একটি 5000mAh ব্যাটারি, যা দীর্ঘস্থায়ী পাওয়ার সাপ্লাই প্রদান করে। এই ব্যাটারি দিয়ে ফোনটি একটি চার্জে সম্পূর্ণ দিন চলতে সক্ষম। এছাড়াও, ফোনটিতে রয়েছে 25W দ্রুত চার্জিং সুবিধা, যা দ্রুত ব্যাটারি চার্জ করতে সক্ষম।

অপারেটিং সিস্টেম

Samsung Galaxy A55 ফোনটি Android 13 অপারেটিং সিস্টেমে চলমান, যার উপরে রয়েছে One UI 5.1 ইউজার ইন্টারফেস। One UI 5.1 একটি ব্যবহারকারী-বান্ধব ইন্টারফেস প্রদান করে এবং এতে রয়েছে বিভিন্ন কাস্টমাইজেশন অপশন, যা ব্যবহারকারীদের আরও সহজ এবং সুবিধাজনক অভিজ্ঞতা প্রদান করে।

সংযোগ

Samsung Galaxy A55-এ রয়েছে উন্নত সংযোগ সুবিধা। এতে রয়েছে 4G, Wi-Fi 802.11 a/b/g/n/ac, Bluetooth 5.1, এবং USB Type-C 2.0 পোর্ট। এই সংযোগ সুবিধাগুলি ব্যবহারকারীদের দ্রুত ইন্টারনেট ব্রাউজিং এবং ডাটা ট্রান্সফার সুবিধা প্রদান করে।

অন্যান্য বৈশিষ্ট্য

ফোনটির সাইড-মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর দ্রুত এবং নিরাপদ আনলকিং সুবিধা প্রদান করে। এছাড়াও, ফোনটিতে রয়েছে বিভিন্ন সেন্সর, যেমন এক্সেলেরোমিটার, জাইরো, প্রক্সিমিটি, এবং কম্পাস, যা ব্যবহারকারীদের অভিজ্ঞতাকে আরও উন্নত করে।

মূল্য

Samsung Galaxy A55 এর মূল্য বাংলাদেশে প্রায় BDT 35,000 থেকে BDT 40,000, যা এর উচ্চমানের ফিচার এবং স্পেসিফিকেশনের জন্য সঙ্গতিপূর্ণ।

6. Realme 12 Pro+

Realme 12 Pro+ হলো একটি ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন, যা উচ্চমানের ফিচার ও প্রযুক্তি নিয়ে বাজারে এসেছে। এই ফোনটি তার প্রিমিয়াম ডিজাইন, শক্তিশালী পারফরম্যান্স, এবং উন্নত ক্যামেরা সিস্টেমের জন্য উল্লেখযোগ্য। নিচে Realme 12 Pro+ এর বিস্তারিত বর্ণনা দেয়া হলো:

ডিজাইন ও বিল্ড

  • ডিজাইন: Realme 12 Pro+ ফোনটি একটি প্রিমিয়াম ডিজাইন নিয়ে আসে, যা গ্লাস ব্যাক এবং মেটাল ফ্রেম দিয়ে তৈরি।
  • রঙ: ফোনটি বিভিন্ন আকর্ষণীয় রঙে পাওয়া যায় যেমন- ব্লু, ব্ল্যাক, এবং সিলভার।
  • ডাইমেনশন: 161.6 x 74.4 x 8.7 মিমি
  • ওজন: প্রায় 199 গ্রাম, যা হাতে নেয়ার সময় একটি সলিড এবং প্রিমিয়াম অনুভূতি প্রদান করে।

ডিসপ্লে

  • ডিসপ্লে টাইপ: AMOLED, 1B রং, 120Hz রিফ্রেশ রেট, HDR10+ সাপোর্টেড।
  • সাইজ: 6.7 ইঞ্চি, যা বড় এবং ভিউং এক্সপেরিয়েন্সে একটি অসাধারণ অভিজ্ঞতা প্রদান করে।
  • রেজোলিউশন: 1080 x 2400 পিক্সেল, 20:9 রেশিও (প্রায় 393 পিপিআই ডেন্সিটি)।
  • প্রটেকশন: কর্নিং গরিলা গ্লাস।

হার্ডওয়্যার

  • চিপসেট: MediaTek Dimensity 1200, যা একটি শক্তিশালী এবং এফিসিয়েন্ট চিপসেট।
  • CPU: অক্টা-কোর (1×3.0 GHz Cortex-A78 & 3×2.6 GHz Cortex-A78 & 4×2.0 GHz Cortex-A55)।
  • GPU: Mali-G77 MC9।
  • RAM ও স্টোরেজ:
    • 8GB/128GB
    • 12GB/256GB
  • মেমোরি এক্সপান্ডেবল: মাইক্রোএসডি কার্ড সাপোর্ট নেই।

ক্যামেরা

  • প্রধান ক্যামেরা: কোয়াড ক্যামেরা সেটআপ
    • 108 MP (ওয়াইড)
    • 8 MP (আল্ট্রাওয়াইড)
    • 2 MP (ম্যাক্রো)
    • 2 MP (ডেপথ)
  • ফিচার: ডুয়াল এলইডি ফ্ল্যাশ, এইচডিআর, প্যানোরামা।
  • ভিডিও: 4K@30fps, 1080p@30/60/120/480fps, জাইরো-EIS।
  • ফ্রন্ট ক্যামেরা: 32 MP (ওয়াইড), HDR।
  • ভিডিও: 1080p@30fps।

ব্যাটারি

  • ধরণ: Li-Po 5000 mAh, যা একটি দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি লাইফ প্রদান করে।
  • চার্জিং: 65W ফাস্ট চার্জিং, যা খুব দ্রুত সময়ে ফোনটি চার্জ করতে সক্ষম।

সফটওয়্যার

  • অপারেটিং সিস্টেম: Android 12, Realme UI 3.0 এর উপর ভিত্তি করে।

কানেক্টিভিটি

  • নেটওয়ার্ক: 5G, 4G, 3G, এবং 2G সাপোর্ট।
  • ওয়াইফাই: Wi-Fi 802.11 a/b/g/n/ac/6, ডুয়াল-ব্যান্ড, Wi-Fi ডাইরেক্ট।
  • ব্লুটুথ: 5.2, A2DP, LE।
  • জিপিএস: Yes, with A-GPS, GLONASS, BDS, GALILEO, QZSS।
  • এনএফসি: রয়েছে।
  • ইউএসবি: টাইপ-সি 2.0, OTG সাপোর্ট।

অন্যান্য ফিচার

  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর: ডিসপ্লের নিচে, অপটিক্যাল।
  • অন্যান্য সেন্সর: এক্সিলেরোমিটার, গাইরো, প্রক্সিমিটি, কম্পাস।

Realme 12 Pro+ এর প্রধান আকর্ষণ হলো এর উন্নত ক্যামেরা, শক্তিশালী চিপসেট, এবং দ্রুত চার্জিং সক্ষমতা। এই ফ্ল্যাগশিপ ফোনটি তাদের জন্য আদর্শ যারা একটি প্রিমিয়াম এবং শক্তিশালী স্মার্টফোন চান।

মূল্য

বাংলাদেশের বাজারে বর্তমানে Realme 12 Pro+ ফোনটি ৪০ হাজার থেকে ৪৫ হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যায়। 

7. Motorola Edge (2024)

Motorola Edge (2024) একটি আধুনিক স্মার্টফোন যা উচ্চমানের প্রযুক্তি এবং বৈশিষ্ট্য নিয়ে বাজারে এসেছে। এই ফোনটি স্টাইলিশ ডিজাইন, উন্নত ক্যামেরা সিস্টেম এবং শক্তিশালী পারফরম্যান্সের জন্য উল্লেখযোগ্য। Motorola Edge (2024) এর সামনে 6.8 ইঞ্চি OLED ডিসপ্লে রয়েছে যা FHD+ রেজোলিউশন এবং 144Hz রিফ্রেশ রেট সমর্থন করে, যা ব্যবহারকারীদের জন্য একটি মসৃণ এবং চমৎকার ভিজ্যুয়াল অভিজ্ঞতা প্রদান করে।

ডিজাইন ও বিল্ড

  • ডিজাইন: Motorola Edge (2024) প্রিমিয়াম ডিজাইন নিয়ে আসে, যার মধ্যে রয়েছে স্লিম এবং এলিগেন্ট প্রোফাইল।
  • রঙ: ফোনটি বিভিন্ন আকর্ষণীয় রঙে পাওয়া যায় যেমন- নেবুলা ব্লু, সোলার ব্ল্যাক এবং ইন্টারস্টেলার গ্রে।
  • ডাইমেনশন: 161.2 x 74.0 x 8.8 মিমি
  • ওজন: প্রায় 200 গ্রাম, যা হাতে নিয়ে সহজেই ব্যবহার করা যায়।

ডিসপ্লে

  • ডিসপ্লে টাইপ: OLED, 1B রং, 144Hz রিফ্রেশ রেট, HDR10+ সাপোর্টেড।
  • সাইজ: 6.8 ইঞ্চি, যা বড় এবং ভিউং এক্সপেরিয়েন্সে একটি অসাধারণ অভিজ্ঞতা প্রদান করে।
  • রেজোলিউশন: 1080 x 2400 পিক্সেল, 20:9 রেশিও (প্রায় 387 পিপিআই ডেন্সিটি)।
  • প্রটেকশন: কর্নিং গরিলা গ্লাস 5।

হার্ডওয়্যার

  • চিপসেট: Qualcomm Snapdragon 8 Gen 3, যা একটি শক্তিশালী এবং এফিসিয়েন্ট চিপসেট।
  • CPU: অক্টা-কোর (1×3.2 GHz Cortex-X3 & 3×2.75 GHz Cortex-A715 & 4×2.0 GHz Cortex-A510)।
  • GPU: Adreno 740।
  • RAM ও স্টোরেজ:
    • 8GB/128GB
    • 12GB/256GB
  • মেমোরি এক্সপান্ডেবল: মাইক্রোএসডি কার্ড সাপোর্ট নেই।

ক্যামেরা

  • প্রধান ক্যামেরা: ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ
    • 50 MP (ওয়াইড)
    • 16 MP (আল্ট্রাওয়াইড)
    • 8 MP (টেলিফটো)
  • ফিচার: ডুয়াল এলইডি ফ্ল্যাশ, এইচডিআর, প্যানোরামা।
  • ভিডিও: 8K@30fps, 4K@30/60fps, 1080p@30/60/120/240fps, জাইরো-EIS।
  • ফ্রন্ট ক্যামেরা: 32 MP (ওয়াইড), HDR।
  • ভিডিও: 4K@30fps, 1080p@30/60fps।

ব্যাটারি

  • ধরণ: Li-Po 5000 mAh, যা একটি দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি লাইফ প্রদান করে।
  • চার্জিং: 68W ফাস্ট চার্জিং, 15W ওয়্যারলেস চার্জিং এবং 5W রিভার্স ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট।

সফটওয়্যার

  • অপারেটিং সিস্টেম: Android 14, Motorola’s My UX ইন্টারফেসের উপর ভিত্তি করে।

কানেক্টিভিটি

  • নেটওয়ার্ক: 5G, 4G, 3G, এবং 2G সাপোর্ট।
  • ওয়াইফাই: Wi-Fi 802.11 a/b/g/n/ac/6e, ডুয়াল-ব্যান্ড, Wi-Fi ডাইরেক্ট।
  • ব্লুটুথ: 5.3, A2DP, LE।
  • জিপিএস: Yes, with A-GPS, GLONASS, BDS, GALILEO।
  • এনএফসি: রয়েছে।
  • ইউএসবি: টাইপ-সি 3.1, OTG সাপোর্ট।

অন্যান্য ফিচার

  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর: ডিসপ্লের নিচে, অপটিক্যাল।
  • অন্যান্য সেন্সর: এক্সিলেরোমিটার, গাইরো, প্রক্সিমিটি, কম্পাস, ব্যারোমিটার।

Motorola Edge (2024) এর প্রধান আকর্ষণ হলো এর উন্নত ক্যামেরা, শক্তিশালী চিপসেট, এবং দ্রুত চার্জিং সক্ষমতা। এই ফোনটি তাদের জন্য আদর্শ যারা একটি প্রিমিয়াম এবং শক্তিশালী স্মার্টফোন চান।

মূল্য

বাংলাদেশের বাজারে এই স্মার্টফোনটির অফিসিয়াল মূল্য ৩৫ হাজার টাকা। 

8. Symphony Innova 30

Symphony Innova 30 হলো Symphony ব্র্যান্ডের একটি স্মার্টফোন, যা তার উচ্চমানের বৈশিষ্ট্য এবং প্রতিযোগিতামূলক মূল্যের জন্য জনপ্রিয়। এই ফোনটি উন্নত প্রযুক্তি এবং ব্যবহারকারী-বান্ধব ডিজাইনের মিশ্রণে তৈরি হয়েছে।

ডিজাইন ও বিল্ড

  • ডিজাইন: Symphony Innova 30 প্রিমিয়াম ডিজাইন নিয়ে আসে, যার মধ্যে স্লিম এবং এলিগেন্ট প্রোফাইল রয়েছে।
  • রঙ: ফোনটি বিভিন্ন আকর্ষণীয় রঙে পাওয়া যায় যেমন- ম্যাট ব্ল্যাক, ফ্রস্ট ব্লু এবং পিয়ার্ল হোয়াইট।
  • ডাইমেনশন: 163.6 x 75.6 x 8.7 মিমি
  • ওজন: প্রায় 190 গ্রাম, যা হাতে নিয়ে সহজেই ব্যবহার করা যায়।

ডিসপ্লে

  • ডিসপ্লে টাইপ: IPS LCD, 90Hz রিফ্রেশ রেট।
  • সাইজ: 6.52 ইঞ্চি, যা বড় এবং ভিউং এক্সপেরিয়েন্সে একটি চমৎকার অভিজ্ঞতা প্রদান করে।
  • রেজোলিউশন: 720 x 1600 পিক্সেল, 20:9 রেশিও (প্রায় 269 পিপিআই ডেন্সিটি)।

হার্ডওয়্যার

  • চিপসেট: MediaTek Helio G35, যা একটি মিড-রেঞ্জ চিপসেট।
  • CPU: অক্টা-কোর (4×2.3 GHz Cortex-A53 & 4×1.8 GHz Cortex-A53)।
  • GPU: PowerVR GE8320।
  • RAM ও স্টোরেজ:
    • 4GB RAM এবং 64GB ইন্টারনাল স্টোরেজ।
    • মাইক্রোএসডি কার্ড দ্বারা 256GB পর্যন্ত এক্সপান্ডেবল স্টোরেজ।

ক্যামেরা

  • প্রধান ক্যামেরা: ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ
    • 13 MP (ওয়াইড)
    • 2 MP (ম্যাক্রো)
    • 2 MP (ডেপথ)
  • ফিচার: এলইডি ফ্ল্যাশ, প্যানোরামা, HDR।
  • ভিডিও: 1080p@30fps।
  • ফ্রন্ট ক্যামেরা: 8 MP (ওয়াইড), HDR।
  • ভিডিও: 1080p@30fps।

ব্যাটারি

  • ধরণ: Li-Po 5000 mAh, যা দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি লাইফ প্রদান করে।
  • চার্জিং: 10W চার্জিং সাপোর্ট।

সফটওয়্যার

  • অপারেটিং সিস্টেম: Android 12।

কানেক্টিভিটি

  • নেটওয়ার্ক: 4G, 3G, এবং 2G সাপোর্ট।
  • ওয়াইফাই: Wi-Fi 802.11 b/g/n, হটস্পট।
  • ব্লুটুথ: 5.0, A2DP, LE।
  • জিপিএস: Yes, with A-GPS।
  • ইউএসবি: টাইপ-সি 2.0।

অন্যান্য ফিচার

  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর: পিছনের দিকে।
  • অন্যান্য সেন্সর: এক্সিলেরোমিটার, প্রক্সিমিটি।

মূল্য

Symphony Innova 30 এর মূল্য ভিন্ন ভিন্ন বাজার এবং মুদ্রার উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হতে পারে। বাংলাদেশে এই ফোনটির সম্ভাব্য মূল্য প্রায় BDT 12,000 থেকে BDT 14,000 এর মধ্যে হতে পারে। অফিসিয়াল প্রাইস ১১৬৯৯ টাকা মাত্র।

Symphony Innova 30 এর প্রধান আকর্ষণ হলো এর ব্যাটারি লাইফ, প্রতিযোগিতামূলক মূল্য এবং সাধারণ ব্যবহারকারীদের জন্য উপযুক্ত ফিচার সেট। এটি এমন ব্যবহারকারীদের জন্য একটি চমৎকার বিকল্প যারা একটি সাশ্রয়ী মূল্যের মধ্যে উন্নত ফিচার এবং স্থায়িত্ব চান।

9. Vivo Y36t

Vivo Y36t একটি মধ্যম মানের স্মার্টফোন যা মূলত চীন বাজারে উন্মুক্ত হয়েছে। এটি বেশ কিছু আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্য নিয়ে আসে যা ব্যবহারকারীদের মধ্যে জনপ্রিয় হয়েছে। নিচে এর বিস্তারিত বিবরণ ও মূল্য দেওয়া হলো:

ডিসপ্লে:

  • স্ক্রিন সাইজ: 6.51 ইঞ্চি
  • রেজোলিউশন: 1600 x 720 পিক্সেল (HD+)
  • ডিসপ্লে টাইপ: LCD

প্রসেসর:

  • চিপসেট: MediaTek Dimensity 700
  • CPU: অক্টা-কোর

মেমোরি এবং স্টোরেজ:

  • র‍্যাম: 6GB / 8GB
  • ইন্টার্নাল স্টোরেজ: 128GB
  • এক্সপ্যান্ডেবল স্টোরেজ: মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে 1TB পর্যন্ত বাড়ানো যায়

ক্যামেরা:

  • পিছনের ক্যামেরা: 50MP (প্রধান) + 2MP (ডেপথ সেন্সর)
  • সামনের ক্যামেরা: 8MP

ব্যাটারি:

  • ক্যাপাসিটি: 5000mAh
  • চার্জিং: 18W ফাস্ট চার্জিং

অপারেটিং সিস্টেম:

  • Funtouch OS 12 (অ্যান্ড্রয়েড 11 ভিত্তিক)

অন্যান্য বৈশিষ্ট্য:

  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর: সাইড-মাউন্টেড
  • কানেক্টিভিটি: 5G, 4G LTE, Wi-Fi, Bluetooth 5.1, GPS
  • ইউএসবি টাইপ: USB Type-C

মূল্য:

Vivo Y36t এর মূল্য ভিন্ন ভিন্ন বাজারে ভিন্ন হতে পারে। চীনে এর মূল্য সাধারণত ১,৪৯৮ ইউয়ান (প্রায় ২২,০০০ টাকা) থেকে শুরু হয়।

10. OnePlus 11R

আপনার বাজেট যদি একটু বেশি হয় তাহলে আমরা আপনাকে এই অসাধারণ ফিচার সম্বলিত স্মার্টফোনটি কিনার জন্য উতসাহিত করবো। OnePlus 11R হলো একটি উচ্চমানের স্মার্টফোন, যা বাংলাদেশে প্রায় ৫২,০০০ থেকে ৫৩,৯৯০ টাকা মূল্যে উপলব্ধ। এতে ৬.৭৪ ইঞ্চির Fluid AMOLED ডিসপ্লে রয়েছে, যার রেজুলেশন ১২৪০ x ২৭৭২ পিক্সেল এবং ১২০হার্জ রিফ্রেশ রেট। ফোনটি Qualcomm SM8475 Snapdragon 8+ Gen 1 (৪ nm) চিপসেট দ্বারা চালিত এবং Android ১৩-এর সাথে OxygenOS ১৩-এ চলমান। এতে ৮/১৬ জিবি RAM এবং ১২৮/২৫৬ জিবি স্টোরেজ ভেরিয়েন্ট রয়েছে। ক্যামেরা সেটআপের মধ্যে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর, ৮ মেগাপিক্সেল আলট্রাওয়াইড এবং ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো লেন্স।

সাধারণ বিবরণ

  • মডেল: OnePlus 11R
  • ব্র্যান্ড: OnePlus

নকশা এবং নির্মাণ

  • মাত্রা: 163.4 x 74.3 x 8.7 mm
  • ওজন: 204 grams
  • বডি মেটেরিয়াল: গ্লাস ফ্রন্ট (Gorilla Glass), গ্লাস ব্যাক, অ্যালুমিনিয়াম ফ্রেম

ডিসপ্লে

    • টাইপ: Fluid AMOLED, 120Hz, HDR10+
    • সাইজ: 6.74 inches
    • রেজুলেশন: 1240 x 2772 pixels
  • প্রটেকশন: Corning Gorilla Glass

হার্ডওয়্যার

  • প্রসেসর (CPU): Qualcomm SM8475 Snapdragon 8+ Gen 1 (4 nm)
  • জিপিইউ (GPU): Adreno 730
  • RAM: 8GB / 16GB
  • ইন্টারনাল স্টোরেজ: 128GB / 256GB (UFS 3.1)
  • মেমোরি কার্ড স্লট: No

ক্যামেরা

প্রাইমারি ক্যামেরা

  • ট্রিপল ক্যামেরা:
    • 50 MP, f/1.8, 24mm (wide), 1/1.56″, 1.0µm, PDAF, OIS
    • 8 MP, f/2.2, 120˚ (ultrawide)
    • 2 MP, f/2.4, (macro)
  • ফিচারস: LED flash, HDR, panorama
  • ভিডিও: 4K@30/60fps, 1080p@30/60/120/240fps, gyro-EIS

ফ্রন্ট ক্যামেরা

  • সিঙ্গেল ক্যামেরা:
    • 16 MP, f/2.4, 26mm (wide)
  • ভিডিও: 1080p@30fps, gyro-EIS

ব্যাটারি

  • টাইপ: Li-Po 5000 mAh, non-removable
  • চার্জিং: 100W wired, PD, 1-50% in 10 min, 1-100% in 25 min (advertised)

সফটওয়্যার

  • অপারেটিং সিস্টেম: Android 13, OxygenOS 13

কানেক্টিভিটি

  • নেটওয়ার্ক: 5G, 4G LTE, 3G, 2G
  • SIM: Dual SIM (Nano-SIM, dual stand-by)
  • WLAN: Wi-Fi 802.11 a/b/g/n/ac/6, dual-band, Wi-Fi Direct
  • ব্লুটুথ: 5.3, A2DP, LE, aptX HD
  • GPS: Yes, with A-GPS, GLONASS, BDS, GALILEO
  • NFC: Yes
  • USB: USB Type-C 2.0, USB On-The-Go

অন্যান্য ফিচার

  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর: Yes, under-display, optical
  • অডিও: 24-bit/192kHz audio
  • স্পিকার: স্টেরিও স্পিকার
  • ইনফ্রারেড: No

রঙ

  • উপলভ্য রঙ: Galactic Silver, Sonic Black

মূল্য

বর্তমানে বাংলাদেশে এর বাজার মূল্য ৫২ হাজার টাকা। দামের দিক থেকে যেমন একটি বেশি তেমনি ফিচার এবং ইউজার এক্সপেরিয়েন্সের দিক থেকেও সেরা একটি ফোন হলো OnePlus 11R।

উপসংহার

আমরা আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে চেষ্টা করেছি বাংলাদেশের বর্তমান বাজারে সেরা যেসব স্মার্ট ফোন রয়েছে তাদের মধ্যে ১০ টি অন্যতম স্মার্টফোন তুলে ধরতে। এখানে আমরা এদের ফিচার এবং অন্যান্য আকর্ষণীয় সকল দিক অত্যন্ত গুছিয়ে আপনাদের সামনে উপস্থাপন করার চেষ্টা করেছি। বাংলাদেশের বাজারে এই স্মার্টফোনগুলো তাদের সেরা ফিচার এবং প্রযুক্তির কারণে ব্যবহারকারীদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয়। আমাদের তালিকার স্মার্টফোনগুলো ব্যবহারকারীর বিভিন্ন চাহিদা পূরণ করে এবং বাংলাদেশের বাজারে তাদের প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতার কারণে শীর্ষে অবস্থান করছে। আশা করি এই তালিকা থেকেই আপনি আপনার পছন্দের স্মার্টফোনটি এতক্ষণে খুজে পেয়ে গেছেন। এরকম নিত্য নতুন আর্টিকেল পেতে আমাদের পেইজের সাথেই থাকুন।

Previous articleবাংলাদেশের সেরা দশটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়
Next articleগ্রামীণফোনের লেটেস্ট ড্যাটা প্যাকেজসমূহ ২০২৪
Md. Zakaria Ahomed
I am zakaria. I am small blogger. Side by side I am writing for others blog also. Feel free to knock me if you need me.