আমার উপলব্ধিতে সুফিয়ান স্টিভেনস

আমার উপলব্ধিতে সুফিয়ান স্টিভেনস

 

 

বিশ্বসেরা ইন্ডি পপ ও ফোক জনারার গায়কদের নাম নিতে গেলে সুফিয়ান স্টিভেনস-এর (Sufian Stevens) নাম না নিয়ে পারা যায় না। একাদিক বাদ্যযন্ত্রের সমানতালে পারদর্শীতার পাশাপাশি রয়েছে তার অনবদ্য লেখনী, শব্দচয়ন।  সবমিলিয়ে স্বর্গীয় এক উপলব্ধি জুড়ে দেয় সুফিয়ান স্টিভেনস তার প্রতিটি গানে। একাধারে গায়ক, গীতিকার,  সুরকার ও বাদক সুফিয়ান স্টিভেনস,  প্রতিটাক্ষেত্রেই সমান পারদর্শিতার প্রমাণ দিয়ে আসছেন শুরু থেকে।

১৯৯৯ সালে A Sun Came এলবামের  মাধ্যমে পথযাত্রা শুরু তার৷  আর তখনই সবার দৃষ্টি কাড়েন সে।  কিন্তু তার আকাশচুম্বী সাফল্য আসে ২০০৫ সালের এলবাম Illinois দিয়ে। তারপর একে একে Chicago এলবাম  , Carrie and Lowell এলবাম দিয়ে তিনি শ্রোতাদের মনে ঠাঁই করে নিয়েছেন স্থায়ী আসন।  ২০১৭ সালের অস্কার বিজয়ী সিনেমা Call Me By Your Name এর মিউজিক ডিরেকশন দিয়ে খ্যাতি কামিয়েছেনও ব্যাপক।  আর এই সিনেমার তার  Mystery of Love  গানের জন্য তিনি  90th Academy Award এ  মনেনীত হয়েছিলেন Best Original Song ক্যাটাগরিতে।

হ্যালো পাঠক,  আজ আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি এই মহত গুণীর  দুটি গানের আদ্যোপান্ত।  শোনতে খুব সহজ লাগলেও,  গানের ভেতরকার গল্পগুলো আপনার ভেতরকে নাড়া দিবে তার নিশ্চয়তা আমি দিচ্ছি।  তবে আর দেরি কেন, চলুন শুরু করা যাক।

সুফিয়ান স্টিভেনস-এর মিউজিকের ধরন

তবে শুরু কারার আগে জানতে হবে সুফিয়ানে মিউজিক ধরন সম্পর্কে।  মূলত Indie pop এবং Folk জনারা গানের উপর জোর দেন তিনি।  তার গানের মাঝে Banjo র মিউজিকের ব্যবহার দেখা যায় প্রচুর।  তাছাড়াও বিভিন্ন ধরনের মাউথ অর্গান,  বিভিন্ন ধরনের Acoustic বাদ্যযন্ত্রের মিশেলে হারমোনি তৈরি করে থাকেন তিনি প্রায়শই।  তার এই বাদ্যযন্ত্রের সিলেকশন ভিন্নমাত্রা যোগ করে গানে।  পাশাপাশি তার গানের কথাগুলো বেশ তাৎপর্যপূর্ণ।  প্রতিটা গানেই তিনি বাস্তব জীবনের গল্প তোলে ধরার চেষ্ট করেন।  যেমন ধরুন Casimir Pulaski Day গানে মৃত প্রেমিকার জন্য কষ্ট পেতে থাকা একজনের গল্প বা Should Have Known Better গানে  মা বাবার ডিভোর্সের পর একাকি এক চারবছর বয়সী শিশুর বেড়ে ওঠার গল্প বা হোক Joh Wayne Gacy Jr. গানে ক্লাউনের ছদ্মবেশী এক সিরিয়াল কিলারের গল্প।  তাছাড়া পৌরাণিক  গল্প থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে তার বাস্তব প্রয়োগ নিয়েও গান লিখেছেন তিনি বিস্তর।

আমার ব্লগ পড়ুনঃ

নিষিদ্ধ বইঃ যেগুলো না পড়লেই নয় (পর্ব-০১)

নিষিদ্ধ বইঃ যেগুলো না পড়লেই নয় (পর্ব-০২)

সুফিয়ান স্টিভেনস এর দু’টি গান

No Shade in the  Shodow Of The Cross 

যাহোক,  আজকের প্রথম গান No Shade in the  Shodow Of The Cross  এই গানে জীবনের প্রতি বিমুখ একজনের আত্মহত্যার গল্প শুনিয়েছেন সুফিয়ান।  গানের শুরু “Now That I Fall into your Arms” লাইন দিয়ে,  যাতে তিনি বলতে চেয়েছেন ছেলেটি আত্মহত্যা করেছে এবং তার দৃষ্টিতে সে ক্রাইস্টের বাহুতে পতিত হয়েছে এবং পরকালের পথে যাত্রা করছে।  কিন্তু এখন প্রশ্ন হলো কেন তার এই আত্মহত্যা? তার জবাব সুফিয়ান দিয়েছে পরের লাইনে যেখানে তিনি বলতে চেয়েছেন ছেলেটির  ভালোবাসার মানুষটির কথা, যে তাকে ছেড়ে গেছে মৃত্যুপুরীতে এবং তার মৃত্যুর  দুঃখ কমাতে সে ড্রাগ নিচ্ছিল, কিন্তু সে তার ক্যাপসুলগুলো খোঁজে পাচ্ছিল না। আবার সুফিয়ান নজর দিলেন মৃতপ্রায় ছেলেটির বর্তমানে। তার এই অবচেতন মনে তার খেয়াল হলো আত্মহত্যা মহাপাপ এবং সে নরকে পতিত হবে।  তাই সে বললো  “Drag me to hell in the valley of the Dalles”. কিন্তু তার এই পতিত হবার ব্যাপারটাকে সে তুলনা করল তার মায়ের সাথে।  যেমন করে শিশুবেলা তার মা তাকে স্নেহচাদরে জড়িয়ে রাখতো, যেন সে স্বয়ং ইশ্বরের ছায়া।  যা তিনি গানে বলেছেন “It’s only the shadow of a cross”.

পরের অন্তরায় সুফিয়ান ফিরে গেলেন ছেলেটির আগের গল্পে ।  যেখানে ছেলেটা মেঝেতে শুয়ে ড্রাগ ইনটেক করছে এবং তার প্রিয়তমের মৃত্যুর  পর সে যেন আরো একটু নেশায় বুঁদ হয়ে পড়ে,  গানের ভাষ্যমতে “I take one more hit when you depart”.  তার এই শূন্যতাকে সে দূর করতে তার আকুল আবেদন।  এবং এখানে ধীরে ধীরে তার মানসিক অবনতি দেখাতে চেয়েছে সুফিয়ান।  ছেলেটাকে সে তুলনা করেছে একাকী এক ভ্যাম্পায়ার হিসেবে।  জনশ্রুতি মতে,  ভ্যাম্পায়ার আগুনের প্রতি সংবেদনশীল। সুফিয়ান সেই জনশ্রুতিকে ছেলেটার বর্তমান অবস্থার সাথে তুলনা করে বলতে চেয়েছে একাকী ভ্যাম্পায়ার আগুনে আত্মহূতি দিতে চাচ্ছে।  তার বেঁচে ঠিক যেন ড্রাগনের পিছে অযথা দৌঁড়ানোর মতো।

গানের এই মুহূর্তে এসে সুফিয়ান ঠিক জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে ছেলেটার মনোভাব দেখাতে চেয়েছে।  ছেলেটা ব্লেড দিয়ে হাত কেটে আত্মহত্যা করেছে, তার হাতে থাকা ব্লেডটা রক্তে ভেসে যাচ্ছে এবং সে পর্যায়ক্রমে পতিত হচ্ছে চিরস্থায়ী ঘুমে।  গানের ভাষ্যমতে “There’s blood on that blade, fuck me, I’m falling apart”. এবং সেই প্রায়  মৃত্যুর দুয়ারে পতিত হতে হতে ছেলেটা তার জীবনের অন্তিম উপলব্ধি বুঝতে পারে।  শান্ত গলায় সে বলে “There’s no shade in the shadow of the cross”. গানের এই শেষ লাইনটা জুড়ে দিয়ে এক সীমাহীন আধ্যাত্মিক  আখ্যান।  অনেকে এই লাইনটা ব্যাখ্যা করেছেন বিভিন্নভাবে। তবে আমার নিজস্ব মত নিয়েই বলছি। এই Cross শব্দটায় ফোকাস যদি করি তবে,  তা দিয়ে ধরে নিতে পারি সুফিয়ান ক্রস শব্দটি দিয়ে যিশু খ্রিষ্টের দিকে ইঙ্গিত করছেন।  এবং ক্রসের ছায়া বলতে ধরা যেতে পারে ঈশ্বরের দৃষ্টি বা তার সমস্ত সৃষ্টি।  তো পুরো লাইনের ব্যাখ্যা দাঁড় করানো যায় যে ঈশ্বরের দৃষ্টিতে তার সৃষ্টিতে কোনো Shade বা ভেদাভেদ নেই৷  অনেকের মতে গূঢ়ার্থে  এই গানের গল্পের মাধ্যমে সুফিয়ান এক ভেদাভেদহীন সমাজের আকাঙ্ক্ষা ব্যক্ত করেন।

To Be Alone With You

আধ্যাত্মিক নাকি বাস্তবিক এই রকম দ্বন্দ্বে ফেলতে সুফিয়ান খুব পছন্দ করেন।  আজকের দ্বিতীয় গানটিও ঠিক তেমনি এক  দ্বান্দ্বিক গান।  এই গানটিও  বিভিন্ন মানুষ বিভিন্নভাবে ইন্টারপ্রেট  করে থাকে।  গানটির নাম ” To Be Alone With You”.

গানটির শুরু একজনের অফারিংস বা ত্যাগ নিয়ে।  কিন্তু কাকে বা কেন এই ত্যাগ তা নিয়েই দ্বন্দ্বের শুরু।  গানটিতে দুজনের মধ্যাকার কথোপকথন দেখানো হয়েছে।  একজন একনিষ্ঠ ভক্ত আরেকজন স্বয়ং ইশ্বর (এটা নিয়ে মতবিরোধ রয়েছে,  পরে তা ব্যাখ্যা করা হয়েছে,  আপাতত আমরা একে ঈশ্বর তথা যিশু বলে ধরে নিচ্ছি)   গানের শুরুতে ভক্ত বলছে সে মিশিগান  লেক পাড়ি দিয়, নিজের জুতো বিক্রি করে তার কাছে এসেছে। এখানে জুতো বলতে জাগতিক সব সম্পর্কে বোঝাতে চেয়েছেন সুফিয়ান।  ভক্তটি তার সব মোহ ত্যাগ করে তার হৃদয়ের সবটুকু জুড়ে ঈশ্বরকে পেতে চায়।  একাকী ইশ্বরের সান্নিধ্যে থাকতে চায় সে।  তার প্রতুত্তরে যিশু জবাব দেয়,  তুমি তোমার সব কিছু ত্যাগ করেছো।  শূন্যতাকে আপন করেছো তুমি।  তুমি তোমার স্ত্রী পরিবার সব ত্যাগ করে একান্ত আমার সান্নিধ্যে এসেছো।  তুমি সব ছেড়ে একান্তই শীর্ষে চলে এসেছো।  গানের ভাষায় “You went up on a tree”.  এবং তার একনিষ্ঠতা দেখে যিশু খুশি হয়ে বলেন “I’ve never known a man who loved me”.  অর্থাৎ যিশু তার ত্যাগে তুষ্ঠ হয়েছেন।   তো প্রথম ব্যাখ্যামতে গানটা নিতান্তই আধ্যাত্মিক।

কিন্তু সমস্যার শুরুটা এভাবে, গানটায় কার সাথে কার  কথোপকথন হচ্ছে তা সরাসরি বলেনি সুফিয়ান।  তাই অনেকে গানটাকে নিতান্তই সরাসরি অর্থে নিয়ে নেয়।  গানের দুইটা লাইনকে ফোকাস করে কিছু সমালোচক।  প্রথম লাইন “You gave up a wife and a family”,   এবং দ্বিতীয় লাইনটি হলো “I’ve never known a man who loved me”.  যার অর্থ দাঁড় করানো হয় আমাদের প্রথম ব্যক্তি তার প্রথম স্ত্রী পরিবার ছেড়ে তার প্রিয়তম কারো সাথে একাকী  থাকতে চলে এসেছে  এবং তাদের কথোপকথন গানে বর্ণিত হয়েছে।  মোটকথা গানটাতে বিবাহোত্তর অতিরিক্ত সম্পর্ক তথা পরকীয়া জনিত বিষয়ে আলোকপাত করা হয়েছে।  আরো কিছু ক্রিটিকের মতে গানটায় সমকামিতাকে দেখানো হয়েছে।  একজন ক্লোজেটেড সমকামী লোকের নিজের সত্তাকে প্রকাশের গল্প বলা হয়েছে বলে মনে করেন তারা।

কিন্তু ব্যক্তিগত জীবনে সুফিয়ান স্টিভেনস ধর্মপন্থী।  এবং খ্রিষ্টধর্মে  সমকামিতাকে গর্হিত বলে ধরা হয়।  তো আমার মনে হয় না সুফিয়ান এই বিষয়টা গানের মাধ্যমে প্রমোট করবেন।  আমি ব্যক্তিগতভাবে গানটির প্রথম ব্যাখ্যা তথা ভক্ত ও ঈশ্বরের সম্পর্ক এই মতবাদে বিশ্বাসী।  এই বিষয়ে  আপনার কি মত কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।  এই ছিল আজকের আয়োজন।  আপাতত বিদায় নিচ্ছি আজ।  দেখা হবে নতুন কোনো মজাদার বিষয় নিয়ে।  ততদিন ভালো থাকুন, সুস্থ্য থাকুন।


2 responses to “আমার উপলব্ধিতে সুফিয়ান স্টিভেনস”

Leave a Reply