ড্রপবক্স
ড্রপবক্স

টেকনলোজির এই যুগে আমরা চাইলেই এর সর্বোচ্চ ব্যবহার করে আমাদের জীবনকে আরও সহজ ও সাবলিল করে নিতে পারি। ইন্টারনেটে কিছু সার্ভিসের কথা আমরা হয়ত জানিই না যা আসলে বিনা পয়সায় ব্যবহার করা যায়। এমনি একটি সার্ভিস হল ড্রপবক্স। আমার আজকের ব্লগে আমি আপনাদের ড্রপবক্স কি এবং এটি ব্যবহার করে আমরা কি কি সুবিধা পেতে পারি সে বিষয়ে জানাব।

ড্রপবক্স কি

ড্রপবক্স হল ক্লাউড বেজড ফাইল স্টোরেজ সার্ভিস। যারা এই কথাটি বুঝতে পারেন নাই তাদের জন্য সহজ বাংলায় বলতে গেলে বলতে হয়, এটি আপনাকে তার সার্ভারের স্টোরেজে একটি নির্দিষ্ট পরিমান জায়গা বরাদ্দ দিবে যেখানে আপনি আপনার যেকোন ফাইল রাখতে পারবেন এবং আপনার নিজস্ব হার্ড ড্রাইভের মতই ব্যবহার করতে পারবেন।

আরও কিছু প্রতিষ্ঠান এই একই সার্ভিস দিয়ে থাকে- যেমন গুগল, মাইক্রোসফট (ওয়ান ড্রাইভ নামে) ইত্যাদি। কিন্তু তাদের চেয়ে ড্রপবক্সের সেবা এবং পরিষেবা অনেক বেশি হওয়ায় আমি সব সময় ড্রপবক্স ব্যবহারের পক্ষপাতি। তাছাড়া গুগল ড্রাইভের সাথে এন্ড্রোয়েড ফোন ও ইমেইল সংযুক্ত হওয়ার কারনে ১৫ জিবি খুব কম মনে হয় আমার কাছে। তাই প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট রাখার জন্য ড্রপবক্সই আমার ভরসা।

আমাদের অনেকের একটি বদ অভ্যাস হল প্রয়োজনীয় ফাইল ইমেইলে সংযুক্ত করে রেখে দেয়া, যাতে প্রয়োজনের সময় ব্যবহার করতে পারি। বিশেষ করে রাস্তা-ঘাটে মানে যখন ল্যাপ্টপ বা কম্পিউটার আমাদের সাথে না থাকে। ড্রপবক্স আপনাকে এই ঝামেলা থেকে মুক্তি দেবে চিরতরে।

ড্রপবক্স কিভাবে কাজ করে

একাউন্ট ওপেন করার পরে, ডেস্কটপ ভার্সন ইন্সটল করার পর আপনার কম্পিউটারে এটা কিছু ফোল্ডার করে নেবে এবং ঠিক একই রকম ফোল্ডার তার সার্ভারেও থাকবে। আপনি নিজের ইচ্ছামত ফোল্ডার তৈরি বা মুছে ফেলতে পারবেন। এবার আপনার ফোল্ডারে আপনি যা খুশি তাই রেখে দিতে পারেন। ইন্টারনেট কানেকশনের মাধ্যমে এটি ফাইলগুলো আপ্লোড করে নিবে। একইসাথে আপনার মোবাইলে ড্রপবক্স ইন্সটল করা থাকলে সেখানেও ফাইল/ফোল্ডার দেখাবে।

আপনি কোন ফাইলে যেকোন কিছু পরিবর্তন করা মাত্র ড্রপবক্স স্বয়ংক্রিয়ভাবে তা সিঙ্ক্রোনাইজ করে নিতে থাকবে। এবং কানেক্টেড সব ডিভাইসে তার আপ্লোড বা ডাউনলোড করে রাখবে। ফ্রি ভার্সনে আপনি তিনটি পর্যন্ত ডিভাইস সংযুক্ত করতে পারবেন। যেমন আমি আমার ডেস্কটপ, ল্যাপ্টপ আর মোবাইল ফোনে ড্রপবক্স ইন্সটল করে থাকি।

মানে আপনার আর ব্যাকাপ নিতে চিন্তা না করলেও চলছে।

ড্রপবক্স দিয়ে আমরা কি কি করতে পারি

আমি আগেই বলেছি সমসাময়িক অন্যান্য  ক্লাউড বেজড ফাইল স্টোরেজ সার্ভিস যারা দিয়ে থাকে তাদের চেয়ে ড্রপবক্স অনেক এগিয়ে। আসুন দেখে নেই একনজরে ড্রপবক্সের সুবিধাগুলো কি কি?

  • ড্রপবক্সের ডেস্কটপ এবং মোবাইল ভার্সন রয়েছে, তাই একই সাথে পিসি এবং মোবাইলে আমরা সিঙ্ক্রোনাইজড থাকতে পারি।
  • আমার কাছে ড্রপবক্সের সবচেয়ে বেশি যে ফিচারটি ভাল লাগে তা হল ড্রাইভ/ফোল্ডার শেয়ারিং। মানে আপনার ফোল্ডারটিকে যদি আপনি শেয়ার দিয়ে দেন তাহলে দুনিয়ার যেকোন প্রান্ত থেকে যাকে শেয়ার দিয়েছেন সে তার নিজস্ব ড্রাইভের মতই ব্যবহার করতে পারবে। স্বভাবিকভাবেই শেয়ারিং এ ইউজার ওইয়াইজ  তার এক্সেস নির্দিষ্ট করে দেয়ার সুযোগ রয়েছে। আপনি চাইলে কাওকে শুধু দেখার জন্য শেয়ার দিতে পারেন, সে এডিট বা কিছু মুছতে পারবেনা। আবার তাকে ফুল এক্সেসও দিতে পারেন।
  • পেপারলেস সাইনিং এর অপশন এর নতুন সংযোজন।
  • কারও যদি ড্রপবক্সে একাউন্ট নাও থাকে তাকে আপনি আপনার ড্রপবক্সের ফোল্ডারের লিংক শেয়ার দিতে পারবেন। ১০০ এমবি পর্যন্ত ফাইল পাঠানো যায়। তাই আপনার ইমেইল এর এটাচমেন্ট ফাইল সাইজ যদি অনেক বড় হয় আপনি ড্রপবক্সে আপ্লোড করে লিংক শেয়ার দিতে পারেন।
  • লিংক যদি বড় হয় তাহলে লিং সরটেনার ব্যবহার করতে পারেন। কিভাবে? এই ব্লগ পড়ুন
  • নিরাপত্তার দিক থেকে ড্রপবক্স সেরা, তাই আপনি নিশ্চিন্তে  ড্রপবক্স ব্যবহার করতে পারেন।

কিভাবে আপনি ড্রপবক্স এর সেবা পেতে পারেন

খুবই সহজে আপনি ড্রপবক্স ব্যবহার করতে পারেন। ড্রপবক্স এর  ওয়েবসাইটে গিয়ে ফ্রি রেজিস্ট্রেশন করে নিন তারপর আপনার পিসি এবং মোবাইলে সফটওয়্যার টি ডাউনলোড করে ইন্সটল করে নিন। এর পর আর আপনাকে কিছুই ভাবতে হবে না। যা হবে অটোমেটিক।

ড্রপবক্স এর লিমিটেশন

ফ্রি একাউন্টে এখানে মাত্র ২ জিবি ক্লাউড স্টোরেজ দেয় যা খুবই কম স্পেস। তবে আপনি চাইলে এটিকে বাড়িয়ে নিতে পারেন ১৫+ জিবি পর্যন্ত। কিভাবে? আপনার বন্ধুদের ইনভাইটেশন পাঠানোর মাধ্যমে। কেও যদি আপনার ইনভাইটেশন পেয়ে তার ডিভাইসে ড্রপবক্স ইন্সটল করে আপনার ড্রাইভ সাইজ ০.৫ জিবি করে বাড়তে থাকবে। এছাড়া প্রিমিয়াম ইউজের সুযোগ তো থাকছেই।

আমি ড্রপবক্সের একজন আদি ইউজার, ড্রপবক্স ছাড়া আমার চলেই না। আপনিও চাইলে ব্যবহার করতে পারেন। একাউন্ট খুলুন এখানে।

ধন্যবাদ সবাইকে।

Frequently Asked Question

১. ড্রপবক্স ব্যবহারে কোন ঝুঁকি আছে কি?

উত্তরঃ না, ড্রপবক্স ব্যবহারে কোন ঝুঁকি নেই। আপনার সকল ডাটা থাকবে ১০০% সুরক্ষিত।

২. ড্রপবক্স ব্যবহার করতে কি টাকা লাগে?

উত্তরঃ না ভাই, ফ্রি একাউন্টে কোন টাকা লাগেনা। তবে এতে ড্রাইভের সাইজ লিমিটেড থাকে।

Previous articleখেতে খেতে ৮টি আম খেয়ে ফেলেছি-ঘটনার বিশ্লেষন (রম্য রচনা)
Next articleএসইও কি এবং এসইও নিয়ে বেসিক ধারনা পর্ব-০১
Mamun
যে ব্যর্থ সে অজুহাত দেখায়, যে সফল সে গল্প শোনায়। আমি অজুহাত নয় গল্প শোনাতে ভালবাসি। আসুন কিছু গল্প শুনি, নিজের গল্প অন্যকে শুনাই।